আইসিজেতে মিয়ানমারের বিপক্ষে রায়

চাপ সৃষ্টি হলেও সহজ হবে না রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন

  বিডি পিপলস ভয়েস ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ দুপুর ০২:৩২, রবিবার, ২৪ জুলাই, ২০২২, ৯ শ্রাবণ ১৪২৯

রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠীর ওপর চালানো গণহত্যা ও যুদ্ধাপরাধের জন্য মিয়ানমারকে অভিযুক্ত করা হয় আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে (আইসিজে)। এ অভিযোগের বিরুদ্ধে আবেদন করে মিয়ানমার। তবে মিয়ানমারের এ প্রাথমিক আবেদন খারিজ করে দিয়েছে আইসিজে। এতে করে মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টি হবে। তবে সহজ হবে না রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন।

গত শুক্রবার আইসিজে মিয়ানমারের আবেদন খারিজ করে। এ রায় বিচারিক দিক থেকে মিয়ানমারকে পিছু হটালেও প্রত্যাবাসনের জন্য রাজনৈতিক ক্ষেত্রে দেশটির সঙ্গে জয়ী হতে হবে বলে মনে করেন সাবেক রাষ্ট্রদূত এম হুমায়ূন কবির। তিনি সমকালকে বলেন, আদালত একটি সঠিক ও বস্তুনিষ্ঠ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এতে করে বিচারিক দিক থেকে মিয়ানমারের ওপর চাপ সৃষ্টি করা যাবে। তবে বাংলাদেশ সরাসরি এর সুবিধা পাবে না, এটি বাংলাদেশের জন্য একটি ইতিবাচক ধাপ। কারণ এতে করে মিয়ানমারের যারা অপরাধী, তারাই শাস্তি পাবে। এর সঙ্গে সরাসরি প্রত্যাবাসনের কোনো যোগসূত্র নেই। এতে প্রত্যাবাসন সহজ হবে না মন্তব্য করে তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের ফেরত নেওয়ার সিদ্ধান্তটি রাজনৈতিক ও নিরাপত্তা প্রক্রিয়া। রাজনৈতিকভাবেই এতে জয়ী হতে হবে। এ রায় প্রত্যাবাসনের নিশ্চয়তা এনে দেয়নি।

রায়ের প্রতিক্রিয়ায় প্রত্যাবাসন যদি শুরুও হয়, তবে বাংলাদেশকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ইমতিয়াজ আহমেদ। তিনি বলেন, রায়টি রোহিঙ্গাদের জন্য ইতিবাচক। এ পর্যন্ত দুটি রায়ই রোহিঙ্গাদের পক্ষে গিয়েছে। বাংলাদেশের জন্য ইতিবাচক। কারণ এতে করে বাংলাদেশের আলোচকদের হাত শক্ত হলো। তিনি বলেন, এ রায়ের ফলে মিয়ানমার হয়তো তারাতাড়ি প্রত্যাবাসন চাইবে। এ বিষয়ে বাংলাদেশকে সাবধান থাকতে হবে। মিয়ানমার অল্প কিছু রোহিঙ্গাকে নিয়ে আইসিজেকে বোঝানোর কৌশল নিতে পারে। বাংলাদেশ যাতে তড়িঘড়ি করে কোনো সিদ্ধান্ত না নেয়।

এখানে আমাদের সহায়ক পরিবেশ ও রোহিঙ্গাদের আত্মবিশ্বাস তৈরির জায়গায় শক্ত থাকতে হবে। কারণ আমাদের দেশের অনেকের মাথায় রয়েছে যে, প্রত্যাবাসন শুরু হলেই হয়ে গেল। এখানে মিয়ানমারকে বিশ্বাস করা যায় না। সব সময়ে তারা কোনো না কোনো অজুহাত সামনে এনে অন্যদিকে মোড় নিয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গাম্বিয়া বনাম মিয়ানমারের মামলায় গণহত্যা সংঘটনের বিরুদ্ধে নেপিদোর করা আবেদন বাতিল করা নিয়ে আইসিজের রায়কে স্বাগত জানিয়েছে বাংলাদেশ। এতে বলা হয়, আইনি ও পদ্ধতিগত দিক থেকে মিয়ানমারের প্রাথমিক সব আবেদন খারিজ করে দিয়েছে আইসিজে। এ রায় রোহিঙ্গা সংকটের দীর্ঘমেয়াদি সমাধানে সহায়ক হবে মনে করে বাংলাদেশ। আইনসিদ্ধ অধিকার প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে রোহিঙ্গাদের টেকসই প্রত্যাবাসনে আত্মবিশ্বাস তৈরি হবে বলেও মনে করে বাংলাদেশ।

২০১৯ সালের নভেম্বরে রোহিঙ্গা গণহত্যার অভিযোগে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে মামলা করে আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়া। তাতে মিয়ানমার আপত্তি তোলে, আইসিজেতে এ মামলা করার এখতিয়ার গাম্বিয়ার নেই। ১৯৪৮ সালের আন্তর্জাতিক গণহত্যা সনদে সই করা সকল দেশেরই দায়িত্ব হলো গণহত্যা প্রতিরোধে ভূমিকা রাখা। আর গাম্বিয়াও সে কাজই করেছে বলে আইসিজে জানায়। আইসিজের এ মামলা শোনার এখতিয়ার নিয়েও প্রশ্ন তোলে মিয়ানমার। গণহত্যা নিয়ে আন্তর্জাতিক সনদে সই করা কোনো দেশ যখন গণহত্যার অভিযোগ করে, তার ওপর শুনানি করার এখতিয়ার এ আদালতের রয়েছে।

চলতি বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের আবেদনের শুনানি করে আইসিজে। তার ভিত্তিতে গত শুক্রবার মিয়ানমারের আপত্তি নাকচ করে জাতিসংঘের এ আদালত। রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে গণহত্যা বন্ধ বা দোষীদের শাস্তি দিতে ব্যর্থ হওয়ায় ২০১৯ সালের নভেম্বরে আইসিজেতে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে গাম্বিয়া।

বিষয়ঃ রোহিঙ্গা

Share This Article

বিএনপি রাজনীতির মাঠে খেলার যোগ্যতা হারিয়েছে: এমপি গোপাল

বিএনপি আমলের চেয়ে ছয় গুণ বেশি রিজার্ভ রয়েছে: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

স্বল্পমূল্যে বিক্রির জন্য ২ কোটি ২০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কেনা হচ্ছে

সরকার কাউকে বিশৃঙ্খলা করার অনুমতি দিতে পারে না: তথ্যমন্ত্রী

ইনশাআল্লাহ দেশবাসী প্রধানমন্ত্রীকে পঞ্চমবারের মতো নির্বাচিত করবে : পানি সম্পদ উপমন্ত্রী

২০৪১ সালের মধ্যে দেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে : তাজুল ইসলাম

সমাজ থেকে বৈষম্য দূর করতে সরকার বদ্ধপরিকর : স্পিকার

পরিবেশ রক্ষায় কার্যকর পয়ঃবর্জ্য ব্যবস্থাপনা করতে হবে: আতিক

সমাবেশে বাঁশ নিয়ে আসতে বিএনপির বিজ্ঞাপন!

বাংলাদেশ ভারতের কাছে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় : ভার্মা


বিএনপির সঙ্গে জোটের প্রশ্নই আসে না: রওশন

সচিবদের সাথে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি বৈঠক আজ, আলোচনা হবে ১০ বিষয়ে

করোনা: বিশ্বজুড়ে দৈনিক শনাক্ত ও মৃত্যু কমেছে

আমি নারীদের বিশেষ সুবিধা দিয়েছি, খালেদা বন্ধ করেছে : প্রধানমন্ত্রী

টানা ক্ষমতায় থাকায় উন্নয়ন করতে সক্ষম হয়েছি: প্রধানমন্ত্রী

কর্ণফুলী টানেলের প্রথম টিউবের উদ্বোধন আজ

ব্যাংকে টাকা নেই বলে গুজব ছড়াচ্ছে সুযোগসন্ধানীরা : প্রধানমন্ত্রী

১০ ডিসেম্বর ‍বিএনপির গণসমাবেশ: যা বললেন আ.লীগ নেতারা

যশোর থেকে শুরু হলো আওয়ামী লীগের নির্বাচনি প্রচারণা

আগামী নির্বাচনে নৌকার জন্য ভোট চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

রিজার্ভের কোনো সমস্যা নাই: প্রধানমন্ত্রী

শেখ হাসিনাকে এক নজর দেখতে ৪০ কিলোমিটার পথ পাড়ি!