বিএনপির সঙ্গে জোটের প্রশ্নই আসে না: রওশন


জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ বলেছেন, বিএনপির সময়ে জাতীয় পার্টি খুবই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমাদের নেতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এবং আমি ও আমার সন্তানসহ দলের হাজার হাজার নেতাকর্মী জেল খেটেছেন। তখন আমাদের জনসভাও করতে দেওয়া হয়নি। ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে অনেক জনসভায় হামলা চালানো হয়। সেই দিনগুলো আমরা ভুলবো কী করে? তাছাড়া আমরা তাদের শাসনামলে হাওয়া ভবনের দুর্নীতি, অব্যবস্থাপনা ও অপতৎপরতা দেখেছি।

তিনি বলেন, জনগণ উন্নতি ও শান্তির জন্য পরিবর্তন চায়। জাতীয় পার্টিই দিতে পারে সেই শান্তি। অবশ্যই তা বিএনপি নয়। বিএনপির সঙ্গে জোটের প্রশ্নই আসে না। আজ দুপুরে থাইল্যান্ড থেকে দেশে ফিরে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

 



বিনোদন




বাংলাদেশ

বিষপানে দুই সহোদর হত্যা: স্থানীয়দের বাধায় মরদেহ দেখতে পারেনি মা

দিনাজপুরের বিরলে বাবার দেয়া বিষে রিমন (৭) ও ইমরান (৩) নামে নিহত দুই শিশুর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। তবে মা কুলসুম বানুকে তাদের মরদেহ দেখতে দেয়নি এলাকাবাসী।

বিএনপির দুঃশাসনের কথা ভুলে নি মানুষ

প্রাথমিক গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ভোলা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুল বলেছেন, ২০০১ সাল থেকে ২০০৬ পর্যন্ত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের দুঃশাসনের কথা মানুষ ভুলে নাই। তারা আওয়ামী লীগের হাজার হাজার নেতাকর্মীদেরকে হামলা-মামলা দিয়ে বাড়িঘর ছাড়া করেছিল। অসংখ্য নেতাকর্মীকে হত্যা করেছে এবং নির্যাতন করে পগু করেছে। সে কথা আমরা ভুলে যায়নি। 

ভুল চিকিৎসায় প্রাণ গেল শিশুর, আটক ২

ঝিনাইদহে ভুল চিকিৎসায় ইসরাত জাহান মাহেরা নামে (৭) বছরের এক শিশুর মৃত্যুর ঘটনায় ক্লিনিক ভাঙচুর করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ ক্লিনিক মালিক আবু সাঈদ মুন্সী ও কথিত চিকিৎসক আব্দুল্লাহ আল মামুনকে আটক করেছে। ক্লিনিকটির নার্সসহ স্টাফরা গা ঢাকা দিয়েছে।

শুক্রবার রাতে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার নারায়ণপুর ত্রিমোহনী এলাকায় ইসলামী প্রাইভেট হাসপাতালে এই ঘটনা ঘটে। শিশু মাহেরা ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বাদপুকুর গ্রামের পিন্টু মিয়ার মেয়ে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীর সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার বিকেলে পেটে ব্যথা নিয়ে ইসরাত জাহান মাহেরা নামে সাত বছরের এক শিশু ক্লিনিকে ভর্তি হয়। ভর্তির পরে চিকিৎসকের দেয়া ব্যবস্থাপত্র মোতাবেক শিশুটির শরীরে পরপর তিনটি ইঞ্জেকশন পুশ করে নার্সরা। ফলে সন্ধ্যা নাগাদ শিশুটি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। শিশুটির মুমূর্ষ অবস্থা দেখে মা শামীমা আক্তার ডিউটিরত কথিত চিকিৎসক আব্দুল্লাহ আল মামুনের শরণাপন্ন হলে তিনি ঝিনাইদহে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। রাত আটটার দিকে শিশুটি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।

এদিকে অপচিকিৎসায় শিশু মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে ক্ষুব্ধ স্বজনরা হাসপাতালে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়। তারা ক্লিনিকে ঢুকে ডাক্তারের চেম্বার, অপারেশন থিয়েটার ও প্যাথলজিক্যাল কক্ষসহ আসবাবপত্র তছনছ করে। খবর পেয়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং ক্লিনিক মালিক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ মুন্সী ও কথিত চিকিৎসক আব্দুল্লাহ আল মামুনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ভুল চিকিৎসার কারণে ইতিপূর্বে মানহীন ওই ক্লিনিকটি একাধিকবার ‌ সিলগালা করে দেয় প্রশাসন। ক্লিনিকে সর্বক্ষণ কোন চিকিৎসক ও প্রশিক্ষিত নার্স ছাড়াই চলে আসছে বলে অভিযোগ।

এ বিষয়ে ঝিনাইদহের সিভিল সার্জন ডা. শুভ্রা রানী দেবনাথ জানান, তিনি বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়ে ব্যবস্থা নেবেন। ঝিনাইদহ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ মো. সোহেল রানা জানান, শিশু মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে স্থানীয় একটি ক্লিনিক ভাঙচুর করা হয়েছে। এ ঘটনায় ক্লিনিক মালিক ও কথিত এক চিকিৎসককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

নিখোঁজের দুদিন পর প্রবাসীর স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মাদারীপুরে নিখোঁজের দুদিন পর মৌসুমি আক্তার (২৪) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে সদর উপজেলার উত্তর দুধখালী এলাকার নদীর পাড়ের বাগান থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।