খালেদার জায়গা নিতে চান ফখরুল

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ বিকাল ০৩:৫৮, বৃহস্পতিবার, ২ মার্চ, ২০২৩, ১৭ ফাল্গুন ১৪২৯

বিএনপির রাজনীতি থেকে বহুদিন ধরেই বিচ্ছিন্ন খালেদা জিয়া। নেতাকর্মীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ থেকে দলীয় কর্মসূচি- কোনো কিছুতেই দেখা যায়নি তাকে। এমন পরিস্থিতিতে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে খালেদা জিয়ার একমাত্র যোগাযোগের মাধ্যম ছিলেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এতদিন তার কথাই খালেদা জিয়ার নির্দেশ ভেবে পালন করে এসেছেন নেতাকর্মীরা।

সম্প্রতি খালেদা জিয়ার রাজনীতিতে সক্রিয় হওয়া নিয়ে বিএনপিতে গুঞ্জন শুরু হয়েছে। এ নিয়েও নানা মতামত বিএনপি নেতাদের। কেউ বলছেন তারেক রহমান দলীয় নিয়ন্ত্রণ নিতে খালেদা জিয়াকে সরিয়ে রেখেছেন। কেউ বলছেন, খালেদা জিয়ার রাজনীতিতে নিষ্ক্রিয় হওয়ার পেছনে তার পরিবারের অন্য সদস্যরা জড়িত। তবে এবার জানা গেল নতুন তথ্য।

বিএনপির একটি সূত্র জানিয়েছে, দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নিজেকে দলের সর্বোচ্চ পর্যায়ে নিতে চান। এজন্য তিনি খালেদা জিয়ার সঙ্গে দলীয় নেতাকর্মীদের সাক্ষাৎ করতে দিতেন না। বরং নিজের মনগড়া সিদ্ধান্ত ও নির্দেশনাকে খালেদা জিয়ার নামে চালিয়ে দিতেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক খালেদা জিয়ার পক্ষের এক নেতা জানান, খালেদা জিয়া কখনোই নেতাকর্মীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে অস্বীকৃতি জানাননি। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরই নেতাকর্মীদের খালেদা জিয়ার কাছে ঘেঁষতে দিতেন না। বরং তিনি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর তথ্য খালেদা জিয়াকে দিতেন। একইভাবে নেতাকর্মীদের মাঝেও খালেদা জিয়াকে নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াতেন। দিনদিন এভাবেই বিএনপির ভেতরে বিভেদ-কোন্দল সৃষ্টি করে রেখেছেন মির্জা ফখরুল।

বিএনপির আরেক নেতা জানান, মির্জা ফখরুল দলীয় বৈঠকগুলোতে প্রতিনিয়ত নিজেকে জাহির করার চেষ্টা করেন। কেউ তার মতের বিরুদ্ধে কথা বলতে পারে না। প্রায়ই দলীয় বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নিয়ে নেতাকর্মীদের ওপর চড়াও হন ফখরুল। তার দুর্ব্যবহারে বিএনপি নেতাকর্মীরা অতিষ্ঠ।

এদিকে, খালেদা জিয়ার রাজনীতিতে সক্রিয় হওয়ার গুঞ্জনে তার পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছেন বেশ কয়েকজন বিএনপি নেতা। তারা জানিয়েছেন, খালেদা জিয়া কখনোই নিজেকে রাজনীতি থেকে সরিয়ে রাখতে চাননি। উল্টো তাকে চিরদিনের জন্য বিএনপির রাজনীতি থেকে বিদায় করার পাঁয়তারা চলছে। এ লক্ষ্যে দলের ভেতরে খালেদা জিয়ার নামে মিথ্যাচার করে চলেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা জানান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নিজেকে বিএনপির চেয়ারপার্সনের জায়গায় নিতে চান। এ কারণেই খালেদা জিয়ার নামে মিথ্যাচার ও বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন। তার মিথ্যাচারে বিভ্রান্ত হয়ে নেতাকর্মীরা নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েছেন। ফলে দিনের পর দিন আন্দোলন-কর্মসূচিতে ব্যর্থ হচ্ছে বিএনপি।

Share This Article


২৭ জুলাই শান্তি সমাবেশ : বড় প্রস্তুতি নিয়ে রাজপথে থাকবে আওয়ামী লীগ

বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের উন্নতি হচ্ছে

নুরের সঙ্গে সাক্ষাৎ: বিস্ফোরক তথ্য দিলেন সাফাদি

যে কারণে বাংলাদেশের নির্বাচনে আমেরিকার নাক গলানো উচিত নয়: ইন্ডিয়া টুডে’র নিবন্ধ

নোবেল জয়ী ইউনূস : একজন সাদা মানুষের কালো অধ্যায়

গণমাধ্যম ও রাজনৈতিক নেতৃত্বের মাঝে অনাস্থা তৈরিতে দায়ী যে দুই সংবাদ মোড়ল

সাংবাদিকতার নামে শিশুকে এক্সপ্লয়েট করা জঘন্য অপরাধ: ড. সেলিম মাহমুদ

দুবাইয়ে আরাভের অঢেল সম্পদের নেপথ্যে কারা

ড. ইউনুসের অর্থপাচার এবং আর্থিক দুর্নীতি ও অন্যান্য অপরাধের বিবরণ

চমকে দেওয়া পর্যটন রেল

অতি বাম অতি ডানগুলো সব এক হয়েছে: হানিফ