বিনিয়োগের জোয়ার : সত্যি হলো পদ্মা সেতুকে ঘিরে অর্থনৈতিক ভাবনা

  বিডি পিপলস ভয়েস ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ বিকাল ০৪:০৪, মঙ্গলবার, ৫ জুলাই, ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯

দেশের দক্ষিণাঞ্চলের সাথে সড়কপথে যোগাযোগ স্থাপনে যখন পদ্মা সেতুকে প্রস্তুত করা হচ্ছিল, তখন এ অঞ্চলে বিনিয়োগের জোয়ার আসবে বলে ধারণা করা হয়েছিল। অবশেষে সেতু চালুর পরপরই সেই ধারণা সত্যি হলো। ইতোমধ্যে নতুন কারখানা স্থাপনের জন্য অন্তত ৫০টি বৃহৎ শিল্পপ্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে প্রস্তাব এসেছে, যেখানে সর্বমোট বিনিয়োগের পরিমাণ ৫ হাজার কোটি টাকার উপরে।

প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে- বৃহৎ শিল্পগ্রুপ নিটল-নিলয়, শেলটেক, প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ, টিকে গ্রুপ, এনভয় গ্রুপ, মীর গ্রুপ, ইস্ট কোস্ট গ্রুপ, মেঘনা গ্রুপ, হামীম গ্রুপসহ ইন্দোবাংলা, এবং অপসোনিন ফার্মার মতো বড় বড় প্রতিষ্ঠানগুলো।

 

বিনিয়োগের দিক দিয়ে নিটল-নিলয়ের সর্বোচ্চ ১ হাজার কোটি টাকা, শেলটেকের ৭০০ কোটি টাকা এবং অপসোনিন ফার্মার ৫০০ কোটি টাকা রয়েছে। অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের বিনিয়োগও ৩০০ থেকে ৪০০ কোটির মধ্যে রয়েছে বলে জানায়, বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিআইডিএ)।

নদীপথে কম খরচে পণ্য পরিবহনের জন্য দক্ষিণাঞ্চল আগে থেকে আকর্ষনীয় ছিল। তবে ফেরিতে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা ও অনিশ্চিয়তার জন্য পদ্মা সেতু নির্মাণের আগে সেখানে উদ্যোক্তারা আগ্রহ দেখাননি। এখন পদ্মা সেতুর মাধ্যমে তারা অঞ্চলটির ব্যাপক অর্থনৈতিক সম্ভাবনাকে কাজে লাগানোর মাধ্যমে লাভবান হতে চাইছেন।  

সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা জানান, এ অঞ্চলে অপেক্ষাকৃত সস্তা শ্রম, এবং বিশেষত কৃষি-ভিত্তিক শিল্পের কাঁচামালের সহজলভ্যতা- তাদের উৎসাহিত করছে। ঢাকার বাইরে শিল্পস্থাপনে কর অবকাশের সুবিধা এবং পদ্মা সেতু পর্যন্ত সরাসরি নির্মিত নতুন হাইওয়ে রুটগুলিও তাদের আগ্রহী করছে।

জানা যায়, পদ্মা সেতুকে কেন্দ্র করে এরইমধ্যে ঢাকা, খুলনা ও বরিশাল বিভাগকে ঘিরে মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা)। এই তিন বিভাগের ২১টি জেলায় নতুন করে ১৭টি অর্থনৈতিক অঞ্চল (ইজেড) স্থাপনের পদক্ষেপ নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

সংশ্লিষ্টদের মতে, এসব উদ্যোগ বাস্তবায়িত হলে দেশে বিশেষ করে দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের পরিকল্পিত শিল্পায়ন আরও গতিশীল হবে। কর্মসংস্থান হবে প্রায় এক কোটির বেশি মানুষের।

বিষয়ঃ বাংলাদেশ

Share This Article