বিএনপি সরকার কেন কালো টাকা সাদা করার সুযোগ দিয়েছিল?

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ বিকাল ০৩:০৯, রবিবার, ৯ জুন, ২০২৪, ২৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

অর্থনৈতিক স্বার্থেই এবার ১৫ শতাংশ কর দিয়ে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ দেয়া হয়েছে। কেননা ব্যাংকিং সিস্টেমে অর্থপ্রবাহ বাড়ার পাশাপাশি দেশের অর্থনীতি আরও শক্তিশালী হয়।

দেশজুড়ে আলোচনার তুঙ্গে এখন ‘কালো টাকা সাদা টাকা’। নতুন বাজেট আসতেই এ নিয়ে শুরু হয়েছে নানান সমালোচনা। ইস্যুটি রীতিমতো ‘এজেন্ডা’ হিসেবে বেছে নিয়েছে বিএনপি। কথায় কথায় এ প্রসঙ্গ টেনে সরকারকে তুচ্ছতাচ্ছিল্য করছেন দলটির শীর্ষ নেতারা। অথচ কালো টাকা সাদা করার সুযোগটি শুরুতেই দিয়েছিল জিয়াউর রহমানের সামরিক সরকার। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারও সেই পথে হেঁটেছিল। তবু কেন এত সমালোচনা?

তথ্যমতে, ১৯৭৬ সালে সামরিক সরকারের বাজেটে ৫০ কোটি টাকা সাদা করেছিলেন কালো টাকার মালিকরা। আর ২০০৬ সালে বিএনপির আমলে এ সুযোগটি নেন ৩৩ হাজার ব্যক্তি; যার বিপরীতে বৈধ হয়েছিল সাড়ে ৯ হাজার কোটি টাকা। ওই অর্থবছরে ৭০ হাজার কোটি টাকার বাজেট দিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমান। এরপরও ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেটকে বিভিন্ন আখ্যা দিয়ে যাচ্ছেন বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ নেতারা।

প্রস্তাবিত বাজেটে কালো টাকা সাদা করার সুযোগকে ‘বে-নজির’ বলে সরকারের কড়া সমালোচনা করছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এর মাধ্যমে ‘অসততাকে উৎসাহিত করা’ হয়েছে জানিয়ে কটু কথা বলে বেড়াচ্ছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য জমিরউদ্দিন সরকারসহ অন্যরা। সরকারবিরোধী ছোট-বড় সব দলের নেতারাও একই সুরে বক্তব্য দিচ্ছেন। রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের উদ্দেশ্যেই তারা এই পথ বেছে নিয়েছেন বলে মনে করছে সচেতন মহল।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, কর দেয়ার ভয়ে সাধারণত কালো টাকা দেশে খরচ করেন না অসাধু ব্যক্তি বা ব্যবসায়ীরা। এজন্য বিনিয়োগে খাটানোর নামে অবৈধ পথে বিদেশে পাচার করেন তারা। আর এসব অপ্রদর্শিত অর্থ মূল ধারায় আনতেই প্রস্তাবিত বাজেটে বৈধ করার সুযোগ দেয় সরকার। এর ফলে ব্যাংকিং সিস্টেমে অর্থপ্রবাহ বাড়ার পাশাপাশি দেশের অর্থনীতি আরও শক্তিশালী হয়। মূলত অর্থনৈতিক স্বার্থেই এবার ১৫ শতাংশ কর দিয়ে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ দেয়া হয়েছে।

সমালোচকরা বলছেন, কালো টাকা সাদা করা নিয়ে বিএনপি নেতারা যেভাবে ঢালাওভাবে সমালোচনা করছেন তা একেবারেই বাড়াবাড়ি। অথচ দলটির প্রতিষ্ঠাতা জিয়ার আমল থেকেই এই প্রথা চালু হয়েছিল। তাহলে তাদের বক্তব্যে দুর্বৃত্তের তালিকায় প্রথমেই রাখতে হবে জিয়াউর রহমানসহ খালেদা জিয়া-সাইফুর রহমানদের নামও। কারণ তারাই সুযোগটি প্রথমে করে দিয়েছিলেন।

Share This Article


বাজেট সমালোচনা যুগেযুগে: কেউ কারো বাজেটের প্রশংসা করেনি!

ছয়দফা কেন বাঙালির মুক্তির সনদ

ভারতে বিজেপি দুর্বল হওয়ায় বিএনপি খুশি, আওয়ামী লীগও খুশী!

জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট ইস্যু পেয়েও সুযোগ হারাচ্ছে বিএনপি!

বন্ধ করে দেয়া ১৪৮ ফেসবুক আইডি বা পেজ এর মালিক কে?

কার অভিশাপের কথা বললেন ড. ইউনুস?

ইউরোপ-আমেরিকার চেয়ে বাংলাদেশে নিত্যপণ্যের দাম কোনোভাবেই বেশি নয়!

মাহফুজ আনামরাও কি বেনজিরের সহযোগী নয়?

বিএনপি এবার কীভাবে এগোবে, প্রশ্ন তৃণমূলের, নীরব হাইকমান্ড!

বিএনপি শাসনামল:যেভাবে দুর্নীতিতে বিপর্যস্ত হয়েছিল বাংলাদেশ

আন্দোলনের মাঠ ছেড়ে বিদেশে দুই ডজনের বেশি বিএনপি নেতা