খালেদা জিয়ার কয়লাখনি দুর্নীতি মামলার অভিযোগ গঠন শুনানি ৫ আগস্ট

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ সকাল ১১:৪৫, মঙ্গলবার, ২৮ মে, ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

২০০৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়া ও তার মন্ত্রিসভার সদস্যসহ ১৬ জনের বিরুদ্ধে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলা দায়ের করে দুদক। শাহবাগ থানায় মামলাটি করেন দুর্নীতি দমন কমিশনের তৎকালীন সহকারী পরিচালক মো. সামছুল আলম।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ অন্যান্য আসামির বিরুদ্ধে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলার অভিযোগ গঠন শুনানির তারিখ পিছিয়ে আগামী ৫ আগস্ট ধার্য করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার (২৮ মে) কেরানীগঞ্জে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-২ এর বিচারক মো. আক্তারুজ্জামানের আদালত এই  তারিখ ধার্য করেন।

এদিন মামলাটির অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য দিন ধার্য ছিল। তবে দুদকের পক্ষ থেকে অভিযোগ গঠন শুনানি পেছানোর জন্য আবেদন করা হয়। আদালত সময় আবেদন মঞ্জুর করে শুনানির পরবর্তী এই তারিখ ঠিক করেন।

এদিকে এই মামলার প্রধান আসামি খালেদা জিয়া অসুস্থ থাকায় আদালতে হাজির হতে পারেননি। তারপক্ষে মাসুদ আহমেদ তালুকদার হাজিরা দেন। 

খালেদা জিয়ার আইনজীবী আব্দুল হান্নান ভূঁইয়া এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

খালেদা জিয়া ছাড়া অন্য আসামিরা হলেন, সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাফ হোসেন চৌধুরী, সাবেক স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন, সাবেক তথ্যমন্ত্রী এম শামসুল ইসলাম, মো. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, হোসাফ গ্রুপের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন, সাবেক জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ সচিব নজরুল ইসলাম, পেট্রোবাংলার সাবেক পরিচালক মঈনুল আহসান, সাবেক জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী এ কে এম মোশারফ হোসেন।

২০০৮ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়া ও তার মন্ত্রিসভার সদস্যসহ ১৬ জনের বিরুদ্ধে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলা দায়ের করে দুদক। শাহবাগ থানায় মামলাটি করেন দুর্নীতি দমন কমিশনের তৎকালীন সহকারী পরিচালক মো. সামছুল আলম।

কনসোর্টিয়াম অব চায়না ন্যাশনাল মেশিনারি ইম্পোর্ট অ্যান্ড এক্সপোর্ট করপোরেশনকে (সিএমসি) বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির অনুমোদন দিয়ে রাষ্ট্রের কয়লা উত্তোলনে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দরদাতা সিএমসির সঙ্গে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির উৎপাদন, ব্যবস্থাপনা ও রক্ষণাবেক্ষণ চুক্তি করায় সরকারের প্রায় ১৫৮ কোটি ৭১ লাখ টাকার ক্ষতি হয়। পরে এ মামলা দায়েরের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন খালেদা জিয়া। ২০০৮ সালের ১৬ অক্টোবর বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি মামলার কার্যক্রম স্থগিত করেন হাইকোর্ট।

Share This Article


ড. ইউনূসসহ ১৪ জনের বিচার চলবে কি না, জানা যাবে ১২ জুন

দুর্নীতির মামলায় ড. ইউনূসসহ ১৪ জনের বিচার শুরু

যৌন হয়রানির প্রমাণ পেলে আইন পেশায় না: অ্যাটর্নি জেনারেল

প্রাথমিকে তৃতীয় ধাপে মৌখিক পরীক্ষা গ্রহণে বাধা নেই

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ: ভাইভা হলেও তদন্তের আগে ফল প্রকাশ নয়

তদন্তে থাকা মামলায় গণমাধ্যমে বক্তব্য বন্ধে আইনি নোটিশ

প্রাথমিকে ৪৬ হাজার শিক্ষক নিয়োগের কার্যক্রম স্থগিত করলেন হাইকোর্ট

এমপি আনার হত্যা: তিন আসামি ৮ দিনের রিমান্ডে

পি কে হালদারের দুই সহযোগীকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

ভিকারুননিসার ১৬৯ শিক্ষার্থীর ভর্তি বাতিল, অনিয়ম তদন্তের নির্দেশ

কনডেম সেলে জামায়াত নেতাদের সুবিধা দিতে রিট হয়ে থাকতে পারে