নোবেল কমিটি জানতো ইউনূসকে, জানতোনা ক্ষুদ্র ঋণের আদ্যোপান্ত !

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ সন্ধ্যা ০৬:৪৬, মঙ্গলবার, ২ এপ্রিল, ২০২৪, ১৯ চৈত্র ১৪৩১

সারাবিশ্বে ক্ষুদ্র ঋণদান খাতে অগ্রদূত হিসেবে পরিচিত প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস এবং গ্রামীণ ব্যাংক যৌথভাবে ২০০৬ সালের নোবেল শান্তি পুরস্কার পেয়েছেন। তবে সংস্থাটি ড. ইউনূস সম্পর্কেই কেবল অবগত ছিলেন কিন্তু  ক্ষুদ্র ঋণের আদ্যোপান্ত জানতো না বলে সেসময় মন্তব্য করেছিলেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ প্রয়াত সাইফুর রহমান।

তাঁর মতে, ক্ষুদ্র ঋণের কবলে পড়ে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর আরো নিঃস্ব হওয়ার বাস্তবতা যাচাই করেনি ‘নোবেল কমিটি’। এই বিষয়ে বিশ্ব মিডিয়ায় নিজের মনমতো ইউনূস যা লিখেছেন সেসবের উপর ভিত্তি করেই নোবেল পেয়েছেন বলেও মন্তব্য করেছিলেন তিনি।

সূত্রমতে, ড. ইউনূস যখন নোবেল পেলেন তখন মার্কিন সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন ও বেলজিয়ামের রানী বাংলাদেশে এসেছিলেন। প্রত্যন্ত গ্রামে গিয়েছেন এবং সেখানকার অবহেলিত নারীদের সাথে কথা বলেছেন। দিয়েছেন ক্ষুদ্র ঋণের সাহায্যে তাদের ভাগ্য বদলের মিথ্যা তথ্য। এ বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে একটি অনুসন্ধানও শুরু করেন আন্তর্জাতিক সাংবাদিকরা। সেখানে তারা নোবেল প্রাইজ বন্টন নিয়ে পেয়েছেন অবাক করা তথ্য।

সাংবাদিকরা কথা বলেছেন নোবেল কিমিটির প্রধানের সাথেও। তার কাছে ওই সাংবাদিক জানতে চাইছেন কি বিবেচনায় অথবা তারা জানতেন কিনা ড. মুহাম্মদ ইউনূসের পেছনের গল্প ? ওই সাংবাদিককে তখন নোবেল কমিটির প্রধান বলেন, ‘এটি গোপনীয় বিষয়। শুধু ২০ বছরের জন্য না, ৫০ বছরের জন্য। তাই কমিটিতে আমরা যা আলোচনা করছি তা উল্লেখ করতে পারছি না। তবে এটি গোপনীয় রাখার সময় ২০ বা তারও কম রাখা হলে ভালো হতো।’

বিশ্লেষকরা বলছেন, ‘ড. ইউনূস নোবেল পাওয়ার জন্য শুরুতেই টার্গেট করেছে বিশ্ব মিডিয়াকে। সেখানে তিনি তার ‘ক্ষুদ্র ঋণের’ নেকিবাচক দিক বাদ দিয়ে, ইতিবাচক দিকগুলো হাইলাইট করে প্রচার করতেন। যাতে নোবেল কমিটির নজরে আসে। তবে ইউনূসের ক্ষুদ্র ঋণ কার্যক্রম কতটুকু সফল অথবা বাস্তবতা কেমন, এসব বিষয় বিবেচনা না করেই কেবল আন্তজার্তিক মিডিয়ার একপাক্ষিক প্রচারণার ভিত্তিতেই ইউনূসকে নোবেল প্রদান করেন ‘নোবেল কমিটি’।’ অথচ ইউনুস নোবেল পাবার পরদিনই গ্রামীন ব্যাংকের এক ঋণগ্রহীতা সময়মতো ঋণ পরিশোধ করতে না পারলে তার গোয়ালের দুটি গরু জোরপূর্বক নিয়ে যাওয়ার সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল তৎকালীন একটি দৈনিক পত্রিকায়।

Share This Article

উত্তপ্ত মধুখালী: বহিরাগতদের আনাগোনা, পরিস্থিতি উত্তপ্ত করতে চাইছে কারা?

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিকে সাংবাদিকদের ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম

ছয়দিনের সফরে ব্যাংককে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী

মার্কিন সিনেটে ইউক্রেন-ইসরায়েল সহায়তা বিল পাস

ফরিদপুর মধুখালীতে দুই ভাই হত্যার প্রতিবাদ: বড় ধরনের সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টির আলামত!

লোহিত সাগরে নৌকাডুবি, ৩৩ অভিবাসনপ্রত্যাশীর মৃত্যু

র‌্যাবের ১২তম মুখপাত্র হলেন কমান্ডার আরাফাত ইসলাম

প্রচণ্ড গরমে লোকালয়ে ঢুকছে সাপ, সতর্ক থাকার পরামর্শ

তীব্র দাবদাহ, লবণাক্ততা বৃদ্ধি সেচের পানিসংকট

তাপদাহে অস্বস্তিকর প্রহর কাটাচ্ছেন মানুষ


উপজেলা নির্বাচন: ফের গণবহিস্কার বিএনপিতে!

উপজেলা নির্বাচন: বিএনপিকে ধোঁকা দিল জামায়াত!

উপজেলা নির্বাচন বর্জন : লাভের চাইতে ক্ষতি বেশি বিএনপির!

উপজেলা নির্বাচন নিয়ে সংকটে বিএনপি: প্রকাশ্য বিদ্রোহ!

ফের কূটনীতিকদের দৌড়ঝাঁপ: ব্রিটিশ ও মার্কিন কূটনীতিকদের তৎপরতা শুরু!

বিশ্ববাজারে ভোজ্য তেলের দাম কি কমেছে?

দেশের মানুষের ‘নিরাপত্তা’ নিয়ে ইউনুসের দুশ্চিন্তা: সোশ্যাল মিডিয়ায় হাস্যরস!

মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে এক অবিস্মরণীয় দিন ১৭ এপ্রিল

আন্দোলন নিয়ে শরিকদের কোনো দিক নির্দেশনা দিতে পারছে না বিএনপি!

কখনোই যাকাত-ফেতরা দেননা ড. ইউনুস!

বিএনপির আন্দোলনে জনসম্পৃক্ততা ছিলো না বলেই সরকার পতন হয়নি: শিবির সভাপতি

পুরস্কার নিয়ে ড. ইউনূসের চালাকিতে ইউনেস্কোর বিস্ময়!