ধর্ষণের শিকার নারীকে জেরা করতে আদালতের অনুমতি লাগবে

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ সন্ধ্যা ০৬:২৮, সোমবার, ২৫ জুলাই, ২০২২, ১০ শ্রাবণ ১৪২৯

ধর্ষণের শিকার নারীকে প্রশ্ন বা জেরা করতে আদালতের অনুমতির বিধান রেখে ‘এভিডেন্স (অ্যামেন্ডমেন্ট) অ্যাক্ট, ২০২২’ এর অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। ফলে ধর্ষণের শিকার কোনো ভিমটিমকে চাইলে এখন থেকে জেরা করা যাবে না।

সোমবার (২৫ জুলাই) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ভার্চ্যুয়াল মন্ত্রিসভা বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী এবং সচিবালয়ে মন্ত্রিসভা কক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীরা ভার্চ্যুয়ালি বৈঠকে অংশ নেন।

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, গত ১৪ মার্চ মন্ত্রিসভায় আইনটি নিয়ে আসা হয়েছিল। তখন নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়।

বেশ কয়েকটি সংশোধনী আনা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, যিনি ভিকটিম থাকবেন তার চরিত্রের বিষয়ে অনেক সময় বিরোধী পক্ষ থেকে চরিত্রহীন হিসেবে প্রমাণ করার একটা প্রবণতা থাকে। সেটা রেস্ট্রিকশন করে দেওয়া হয়েছে যে, স্টেটওয়ে কারো চারত্রিক বিষয়ে প্রশ্ন তুলতে গেলে আদালতের কাছ থেকে অনুমতি নিতে হবে। আদালত যদি মনে করেন, কারণ সবক্ষেত্রে আউটলাইন করে না দেওয়া হয় তাহলে অনেক ক্ষেত্রে খারাপ লোকজনও থাকতে পারে যে, ট্র্যাপ করে ভালো একজন লোককে ট্র্যাপে ফেলতে পারে। সেক্ষেত্রে আদালত বিবেচনা করবেন, কারো চারিত্রিক বিষয়ে কোনো প্রশ্ন করা যাবে কিনা।

ডিজিটাল কোর্টকে রিকগনাইজ করা হয়েছে বিধায় কিছু সংশোধনী আনার প্রয়োজনবোধ করা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষ সচিব বলেন, যাতে ডিজিটাল কোর্ট, ডিজিটাল সাক্ষ্য গ্রহণযোগ্য হয়। কারণ এভিডেন্ট অ্যাক্টে এটা ছিল না।

তিনি বলেন, আইটির ক্ষেত্রে ইনফরমেশন বা ডাটা ব্যবহার করা হবে। শুধু ইনফরমেশনকে ইনক্লুড করা ছিল। যে সব ইনফরমেশন আসবে সেগুলো সাক্ষ্য হিসেবে নেওয়া যাবে। কেবিনেট মিটিংয়ে আলোচনা হয়েছে যে, ডাটাকেও (সাক্ষ্য হিসেবে) নিতে হবে।

আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ জিনিস ইনক্লুড করা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ডিজিটাল রেকর্ডকে কনসিডার করা হবে। এটা আগে ছিল না।

আইনটি খুব শিগগিরই বাংলা করতে বলা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, এটা ১৮৭২ সালের অ্যাক্ট। এটা একটু সময় লাগবে বলে তারা জানিয়েছেন।

বিষয়ঃ বাংলাদেশ

Share This Article

মালদ্বীপের প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টা মোহাম্মদ আলী জান্নাহর সঙ্গে সালমান এফ রহমান

‘পর্যটন উন্নয়নে মালদ্বীপের অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে চায় বাংলাদেশ’

কারামুক্ত হয়ে বিএনপি নেতা এ্যানী'র ক্ষোভ : দলীয় ঐক্য ও ত্যাগ স্বীকার যথেষ্ট ছিলো না!

বিএনপির কর্মসূচিতে বাধা নয়, সহিংস হলে ব্যবস্থা: কাদের

গাজায় যুদ্ধ নয়, গণহত্যা চলছে : ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট

শবে বরাতের নামাজের নিয়ম ও নিয়ত

মজুতদার-সিন্ডিকেটকে বিএনপি পৃষ্ঠপোষকতা দিচ্ছে: ওবায়দুল কাদের

'ওয়ান ইলেভেন' নিয়ে নিজের সম্পৃক্ততা স্বীকার করলেন ইউনুস!

বঙ্গবন্ধুর 'রাষ্ট্রভাষা দিবস' ঘোষণায় যেভাবে '২১' হয়ে উঠলো ইতিহাস

মিয়ানমার ও রোহিঙ্গা ইস্যুতে ভারত-বাংলাদেশকে একসাথে কাজ করার পরামর্শ ডোনাল্ড লু'র

ফের বিয়ে করলেন ক্রিকেটার আল আমিন


ভিকারুননিসার শিক্ষক মুরাদ গ্রেফতার

বাইডেনের চিঠির জবাব দিলেন শেখ হাসিনা

নারী উদ্যোক্তা তৈরিতে বিশ্বব্যাংকের বিশেষ তহবিল চান প্রধানমন্ত্রী

২৪ দিনে রেমিট্যান্স এলো ১৮ হাজার কোটি টাকা

ঢাকা ছাড়লেন পিটার হাস

আইজিপি ব্যাজ পাচ্ছেন ৪৮৮ পুলিশ সদস্য

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হলেন ৫০ নারী, গেজেট মঙ্গলবার

‘ফিলিস্তিনের বিপক্ষে অপতথ্য ছড়ানো প্রতিরোধে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে হবে’

মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ বাংলাদেশের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ : বিশ্বব্যাংকের এমডি

মিথ্যা খবর দিয়ে বিভ্রান্তি বন্ধে আইন আসছে : আইনমন্ত্রী

চিকিৎসা ব্যবস্থার ওপর আস্থা হারাচ্ছেন মানুষ : হানিফ

রাতারাতি মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ হবে না, অপেক্ষা করতে হবে: অর্থমন্ত্রী