বিসিসি নির্বাচন: ‘স্বতন্ত্র পোশাকে’ মাঠ দখলের চেষ্টা বিএনপির!

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ রাত ০৮:২৮, সোমবার, ২২ মে, ২০২৩, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০
  • ভোটের দিন ঘনিয়ে আসার সঙ্গে ব্যস্ততা বাড়ছে প্রার্থীদেরও।
  • তবে ‘স্বতন্ত্র পোশাকে’ প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছে বিএনপি।
  • মাঠ দখলে নেয়ারও ছক কষছে দলটি।
  • কৌশলের অংশ হিসেবে কোনো কোনো সিটিতে টুপি পরিয়ে প্রার্থী নামানো হয়।

আর কদিন পরই বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন। ভোটের দিন ঘনিয়ে আসার সঙ্গে ব্যস্ততা বাড়ছে প্রার্থীদেরও। প্রতিশ্রুতি নিয়ে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ছুটছেন ক্ষমতাসীনসহ অন্য সব দলের প্রার্থীরাও। তবে ‘স্বতন্ত্র পোশাকে’ প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছে বিএনপি। এমনকি মাঠ দখলেরও চেষ্টায় রয়েছে দলটি। কিন্তু জনপ্রিয়তায় পিছিয়ে থাকায় বিএনপি প্রার্থীরা এখনও তেমন মাথা তুলে দাঁড়াতে পারছেন না। এমনটিই জানিয়েছে একটি সূত্র।

সূত্র জানায়, বক্তৃতা-বিবৃতিতে নির্বাচন করবে না বলে জানালেও বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে এক ধরনের আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই প্রার্থী ঘোষণা দেয় বিএনপি। কৌশল হিসেবেই মেয়র পদে নির্বাচন করছেন সাবেক ছাত্রদল নেতা কামরুল আহসান ওরফে রুপণ। তবে কাউন্সিলর প্রার্থীরা বর্তমানে বরিশাল নগর বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ পদে রয়েছেন। বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির ‘সবুজ সংকেত’ পেয়েই তারা নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন দলটির স্থানীয় একজন নেতা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নগর বিএনপির এই নেতা বলেন, নগর বিএনপির পদধারী অনেকেই কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করছেন। মেয়র প্রার্থী কামরুল দলীয় কোনো পদে না থাকলেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদলের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। একই সঙ্গে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছিলেন। এছাড়া তিনি বরিশালের প্রয়াত মেয়র আহসান হাবিব কামালের ছেলে। যিনি বরিশাল নগর বিএনপির সভাপতি ও বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির মৎস্যজীবী-বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন।

বিভিন্ন সূত্র বলছে, নির্দলীয় কিংবা তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া আর কোনও নির্বাচনে যাবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়ে আসছে বিএনপি। কিন্তু সিটি নির্বাচনে সরাসরি না গিয়ে দেয়া হচ্ছে ‘ঘোমটা পরা’ প্রার্থী। এসব প্রার্থীর মাধ্যমে মাঠ দখলে নেয়ারও ছক কষছে দলটি। তাই অনানুষ্ঠানিকভাবেই বরিশাল সিটি নির্বাচনে প্রার্থী দিয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটি। আর এটি কৌশলেরই অংশ বলে জানায় সূত্রটি।

এ প্রসঙ্গে বরিশাল বিএনপির একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা বলেন, ‘আমাদের মূল লক্ষ্য হলো নৌকা ঠেকানো। অর্থাৎ আওয়ামী লীগ প্রার্থী খোকন সেরনিয়াবাতের বিরুদ্ধে কাজ করা। এজন্য আমরা সব চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। বিএনপির হয়ে মাঠে থাকা প্রার্থীদের পক্ষে কাজ করার পাশাপাশি অন্য সব রাজনৈতিক দলের প্রার্থীকেও আমরা সহায়তা করছি।’

সমালোচকরা বলছেন, সিটি নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে উঠেপড়ে লেগেছে বিএনপি। যদিও কৌশলের অংশ হিসেবে কোনো কোনো সিটিতে টুপি পরিয়ে প্রার্থী নামিয়েছে দলটি। বরিশাল সিটিতেও প্রার্থী দিয়ে মাঠ দখলের পাঁয়তারা করছে তারা। তবে কতটুকু সফল হবে সেটিই এখন দেখার বিষয়।

Share This Article


তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে: প্রধানমন্ত্রী

জলবায়ু মোকাবিলায় ‘লোকাল অ্যাডাপটেশন চ্যাম্পিয়নস’ অ্যাওয়ার্ড পেলেন প্রধানমন্ত্রী

‘ঈদ স্পেশাল ট্রেন’ চলাচল শুরু আজ

ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবাড়ি তৈরি করে দেব : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সোনিয়া গান্ধীর সাক্ষাৎ

মোদিকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ প্রধানমন্ত্রীর

ভুটান থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানি করতে আগ্রহী বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী

শেখ হাসিনা-মোদি বৈঠক সোমবার, গুরুত্ব পাবে দুই দেশের সম্পর্কোন্নয়ন

টানা তৃতীয় মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মোদীর শপথ আজ

নয়াদিল্লি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী

মোদির শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ঢাকা ছাড়লেন প্রধানমন্ত্রী

মোদির শপথ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আজ দিল্লি যাচ্ছেন শেখ হাসিনা