আন্তর্জাতিক পূর্বাভাস: পরবর্তী সরকারও গঠন করবে আওয়ামী লীগ!

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ রাত ১০:৫৬, সোমবার, ৩ এপ্রিল, ২০২৩, ২০ চৈত্র ১৪৩০
  • আগামীতে ক্ষমতায় আসার প্রধানত দুটি সাইন পরিলক্ষিত হয়েছে।
  • জো উইলসনের উত্থাপিত বেশিরভাগই বিল পাস হয়েছে।
  • 'উন্নয়নের রোল মডেল' হিসেবে স্বীকৃতি পাবে।

এক যুগেরও বেশি সময় ধরে ক্ষমতায় থাকায় শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। তৃতীয় মেয়াদ সফলতার সঙ্গে পাড়ি দিয়ে চতুর্থ মেয়াদেও আওয়ামী লীগ সরকার নির্বাচিত হয়ে সরকার গঠনের ইঙ্গিত মিলছে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গবেষণা সংস্থা ও গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে। আগামীতে ক্ষমতায় আসার প্রধানত দুটি সাইন পরিলক্ষিত হয়েছে।

সম্প্রতি আওয়ামী লীগ সরকার ফের নির্বাচিত হওয়ার আভাস দিয়েছে মার্কিন সংবাদ সংস্থা ব্লুমবার্গ। এতে বলা হয়েছে, ‘আগামী নির্বাচনে টানা চতুর্থ মেয়াদে সম্ভাব্য জয়ী হবেন শেখ হাসিনা। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে সাফল্যই হবে তার বিজয়ের অন্যতম কারণ। ব্যালট বাক্সে পরাজিত হওয়ার ভয়ে বিশ্বজুড়ে সরকারি দলের নেতারা প্রায়ই পিছিয়ে পড়ছেন। কিন্তু বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একেবারেই ব্যতিক্রম। তার নেতৃত্বে দক্ষিণ এশিয়ার দেশটি ঘুরে দাঁড়িয়েছে। চাঙা রয়েছেন সকল স্তরের নেতা-কর্মীরা।'

প্রতিবেদনটির রেশ কাটতে না কাটতেই বাংলাদেশের অগ্রগতিকে স্বীকৃতি দিতে মার্কিন কংগ্রেসে উত্থাপিত হয় একটি প্রস্তাব, যে প্রস্তাবে বাংলাদেশকে 'উন্নয়নের রোল মডেল' হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার কথা বলা হয়। গত ২৯ মার্চ প্রস্তাবটি উত্থাপন করেন সাউথ ক্যারোলিনার রিপাবলিকান কংগ্রেসম্যান জো উইলসন। ডোনাল্ড ট্রাম্পের দলের হলেও জো উইলসনের অনেক প্রভাব রয়েছে মার্কিন কংগ্রেসে। কেননা এই কংগ্রেসম্যান যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রসত্ত্বায় অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি।

জো উইলসননের ‍উত্থাপিত বিলে বলা হয়, ‘গত ৫০ বছরে বাংলাদেশের অনেক ‍উন্নতি হয়েছে। বিশেষ করে স্বাধীনতার পর বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি উন্নতি হয়েছে শেখ হাসিনা সরকারের অধীনে গত ১৪ বছরে। বিশ্বের দ্রুত বর্ধনশীল দেশের মধ্যে বাংলাদেশও একটি। এখানকার মাথাপিছু জিডিপি বেড়ে ২০২১ সালে দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ৪৫৭ মার্কিন ডলারে; যা আঞ্চলিক প্রতিবেশীর চেয়েও বেশি।’ তাই বাংলাদেশের অগ্রগতিকে স্বীকৃতি দিলে অনেক অনুন্নত দেশও শিক্ষা নিতে পারবে। তারাও এগিয়ে যেতে পারবে বাংলাদেশের মতো।

বিশ্লেষকরা বলছেন, যুক্তরাজ্যের ইকোনমিস্ট যেমন আইএমএফসহ বিশ্বের বড় বড় অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান ও রাষ্ট্রের অর্থনৈতিক দিক নির্দেশকের ভূমিকা পালন করে,
যুক্তরাষ্ট্রের  ব্লুমবার্গ তেমনই মার্কিন প্রশাসনের অন্যতম রাজনৈতিক দিক নির্দেশক। এ সংস্থার মাধ্যমেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অনাগত দিন কেমন যাবে তার ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়।

অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রে জো উইলসন পরিবারের অনেক গুরুত্ব রয়েছে রাজনীতিতে। এ পর্যন্ত জো উইলসনের উত্থাপিত বেশিরভাগই বিল পাস হয়েছে। বাংলাদেশের অগ্রগতি নিয়ে উত্থাপিত বিলও পাস হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বিলটি পাসের মাধ্যমে একদিকে বাংলাদেশ যেমন 'উন্নয়নের রোল মডেল' হিসেবে স্বীকৃতি পাবে, সেই সঙ্গে এর রূপকার হিসেবে আওয়ামী লীগ সরকার, প্রকারান্তরে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনাকেই স্বীকৃতি দেয়া হবে। বিশ্লেষকদের মতে, এটি হবে আওয়ামী লীগের জন্য মার্কিন প্রশাসনের একটি সবুজ সংকেত।

Share This Article


বিএনপির আন্দোলনে জনসম্পৃক্ততা ছিলো না বলেই সরকার পতন হয়নি: শিবির সভাপতি

পুরস্কার নিয়ে ড. ইউনূসের চালাকিতে ইউনেস্কোর বিস্ময়!

মুজিবনগর সরকারের দক্ষতায় ৯ মাসে হানাদার মুক্ত হয় বাংলাদেশ

সামরিক শাসকের অধীনে রাজনীতিতে যুক্ত হওয়া ইউনূসের মুখে গণতন্ত্র!

ফের বিএনপি জামায়াত সম্পর্ক: উদ্বিগ্ন বিদেশি কূটনীতিকরা

বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি বন্ধ হলে বাড়বে গোপন তৎপরতা, মত শিক্ষাবিদদের

প্রসঙ্গ বুয়েট: ছাত্র রাজনীতি বন্ধের প্রচেষ্টা দেশের জন্য স্থায়ী অকল্যাণ বয়ে আনবে

বেগম জিয়ার ঘনঘন ‘ফিরোজা টু এভার কেয়ার’ রহস্য উন্মোচন!

যে কারণে অপসারণের আগেই গ্রামীণ ব্যাংক ছাড়তে চেয়েছিলেন ড. ইউনূস

মঈনুদ্দিন-ফখরুদ্দিন নয়, 'মাইনাস টু ফর্মুলা’র জনক ছিলেন ইউনূস!

ড. ইউনূসের পক্ষে আইনকানুন ও যুক্তির ব্যবহার নেই, আছে আবেগের বাড়াবাড়ি

আর রাখঢাক নয়: ফের প্ৰকাশ্য হচ্ছে বিএনপি-জামায়াত সম্পর্ক!