নির্বাচন ইস্যুতে একতরফা সিদ্ধান্তে সঙ্গীহীন বিএনপি!

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ দুপুর ০২:২২, শনিবার, ১৮ মার্চ, ২০২৩, ৪ চৈত্র ১৪২৯
  • নীরবে মাঠ গোছাচ্ছে বিএনপি জোটের সব শরিক দল।
  • দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনেও বিকল্প পথে অংশ নেবে জামায়াত।
  • রাজনীতির মাঠে পুরোপুরি সক্রিয় হয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদের।
  • নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া বিএনপি কোনো নির্বাচনে অংশ নেবে না।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় বাকি আর মাত্র কয়েক মাস। নির্বাচন ঘিরে মাঠে ব্যস্ত সময় পার করছে শাসক দল আওয়ামী লীগ। প্রস্তুতি নিচ্ছে ছোট ছোট বিভিন্ন রাজনৈতিক দলও। তবে এবাবের নির্বাচন ইস্যুতে একতরফা সিদ্ধান্তে সঙ্গীহীন হয়ে পড়েছে মাঠের বিরোধী দল বিএনপি। তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া নির্বাচনে আসবে না বলে বহাল তবিয়তে রয়েছে দলটি।

সূত্রমতে, সরকারবিরোধী আন্দোলনের কঠোর হুঙ্কার দিয়ে ছোট দলের সঙ্গে সম্মিলন ঘটিয়ে গত বছর যুগপৎ আন্দোলনের ডাক দেয় বিএনপি। কিন্তু মাস দুয়েক না যেতেই ‘তত্ত্বাবধায়ক সরকারের’ দাবিতে একদফা আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করে দলটি। এরপরই একে একে পিছু হটতে থাকে ছোট ছোট দলগুলি। বিএনপির সঙ্গে বিচ্যুতি ঘটে জামায়াতেরও।

নির্বাচন ‍উপলক্ষে নীরবে মাঠ গোছাচ্ছে বিএনপি জোটের অন্যতম শরিক দল ইসলামী ঐক্যজোট, খেলাফত মজলিসসহ অন্যান্য ইসলামী দল। আওয়ামী লীগের অধীনে নির্বাচনে যেতেও তাদের কোনো আপত্তি নেই। এছাড়া আওয়ামী লীগের সঙ্গে নির্বাচনে অংশ নেয়ার বিষয়ে ঐক্যমতে পৌঁছেছেন ওয়ার্কার্স পার্টি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ, সাম্যবাদী দল, তরিকত ফেডারেশন ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ (চরমোনাই), কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের নেতারা।

অপরদিকে নির্বাচন ঘিরে রাজনীতির মাঠে পুরোপুরি সক্রিয় হয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদের। এরই মধ্যে দলটি ৪০টি আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে। তবে আওয়ামী লীগ থেকে তারা ৬০টি আসন চেয়েছে।

প্রস্তুতি নেয়ার বিষয়ে জামায়াত নেতারা বলেছেন, নিবন্ধন বাতিল হলেও একাদশের মতো দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনেও বিকল্প পথে অংশ নেবে জামায়াত। আগামী নির্বাচনে ১২০ আসনে প্রার্থীও চূড়ান্ত করা হয়েছে।

যুগপৎ আন্দোলন নিয়ে জামায়াতের শীর্ষ এক নেতা বলেন, বিএনপি ঘোষিত যুগপৎ আন্দোলনের অংশ হিসেবে মাত্র একটি কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছে জামায়াত। এরপর বিভিন্ন কারণে আন্দোলন থেকে সরে আসতে হয়েছে আমাদের। বিএনপির সঙ্গে আমরা আর কোনো আন্দোলনে যাবো না।

নির্বাচনে অংশ নেয়া না নেয়ার বিষয়ে বিএনপির এক নেতা বলেন, নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া বিএনপি কোনো নির্বাচনে অংশ নেবে না। এমনকি প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সঙ্গেও কোনো সংলাপে বসবে না। আমরা শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির মাধ্যমে একদফা দাবি আদায় করতে চাই। যতদিন তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রতিষ্ঠা না হবে ততদিন নির্বাচনে যাবে না বিএনপি।

শরিক দলের নির্বাচনী প্রস্তুতির বিষয়ে বিএনপির এই নেতা আরও বলেন, সবাই যার যার মতো নির্বাচনে যাচ্ছে। এতে বিএনপির কোনো বাধা নেই। আমরা এককভাবেই আমাদের আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

Share This Article


হঠাৎ অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান হাইকমিশনারের সঙ্গে সাক্ষাৎ কেন ফখরুলের?

বাজেট সমালোচনা যুগেযুগে: কেউ কারো বাজেটের প্রশংসা করেনি!

ছয়দফা কেন বাঙালির মুক্তির সনদ

ভারতে বিজেপি দুর্বল হওয়ায় বিএনপি খুশি, আওয়ামী লীগও খুশী!

জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট ইস্যু পেয়েও সুযোগ হারাচ্ছে বিএনপি!

বন্ধ করে দেয়া ১৪৮ ফেসবুক আইডি বা পেজ এর মালিক কে?

কার অভিশাপের কথা বললেন ড. ইউনুস?

ইউরোপ-আমেরিকার চেয়ে বাংলাদেশে নিত্যপণ্যের দাম কোনোভাবেই বেশি নয়!

মাহফুজ আনামরাও কি বেনজিরের সহযোগী নয়?

বিএনপি এবার কীভাবে এগোবে, প্রশ্ন তৃণমূলের, নীরব হাইকমান্ড!

বিএনপি শাসনামল:যেভাবে দুর্নীতিতে বিপর্যস্ত হয়েছিল বাংলাদেশ

আন্দোলনের মাঠ ছেড়ে বিদেশে দুই ডজনের বেশি বিএনপি নেতা