বিতর্কিত নোবেল বিজয়ীদের তালিকায় ড. ইউনুস !

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ দুপুর ০২:৩৪, বৃহস্পতিবার, ১৬ মার্চ, ২০২৩, ২ চৈত্র ১৪২৯

নরওয়ের মোবাইল ফোন কোম্পানি 'টেলিনর'কে গ্রামীণ ফোনের বিলিয়ন ডলারের ব্যবসায়ীক পার্টনার করার পুরস্কার হিসেবে প্রফেসর ইউনূসের শান্তিতে নোবেল পুরস্কার কিনা সেসময় এমন প্রশ্ন উত্থাপন করে খোদ নরওয়ের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেল এনআরকে

 

শুরু থেকে আজ পর্যন্ত নোবেল কমিটির অদূরদর্শীতা ও রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের ফলে মহাত্মা গান্ধীর মতো ব্যক্তিত্ব নোবেল বিজয়ীদের তালিকায় স্থান না পেলেও অনেক বিতর্কিত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান শান্তিতে নোবেল পুরষ্কার পেয়েছেন, যা পুরষ্কারটির মূল উদ্দেশ্যকেই প্রশ্নবিদ্ধ করে বলে অভিমত বিশিষ্টজনদের। বিশ্বের যে সকল ব্যক্তিত্বকে নোবেল প্রদান করায় সমালোচনা ও বিতর্ক তৈরি হয় তার ভিত্তিতে ২০১২ সালে মার্কিন প্রভাবশালী গণমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্ট 'বিতর্কিত নোবেল বিজয়ীদের একটি তালিকা প্রকাশ করে।

তবে এটি ওয়াশিংটন পোস্টের নিজস্ব কোনো সংবাদিকতা বা অনুসন্ধান ছিল না। বিভিন্ন মহল ও গণমাধ্যম বা সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিস্তর সমালোচনা ও বিতর্কের ভিত্তিতে তারা ওই তালিকাটি প্রকাশ করে।

ওই তালিকায় পাকিস্তানি নারী মালালা ইউসুফজাই, যুক্তরাষ্ট্রের হেনরি কিসিঞ্জার ও বারাক ওবামা, ইসরাইলের শিমন পেরেজ ও মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সুকির সাথে আসে ড. ইউনূসের নামও।

ওয়াশিংটন পোস্টে ইউনুসকে নিয়ে যা বলা হয়েছিল:

ওয়াশিংটন পোস্টের প্রকাশিত 'বিতর্কিত নোবেল বিজয়ী'দের তালিকার তৃতীয় স্থানে ছিলেন ড. ইউনুস। তার সম্পর্কে বলা হয়, "২০০৬ সালে ড. মুহাম্মদ ইউনুস ও তাঁর প্রতিষ্ঠিত গ্রামীণ ব্যাংক যৌথভাবে নোবেল শান্তি পুরস্কার পান। বিশ্বব্যাপী 'ক্ষুদ্রঋণ' ধারণার পরবর্তনের জন্য তিনি এই পুরস্কার পান, যদিও এটি তার উদ্ভাবন নয় বলে দাবি করেন বাংলাদেশের অর্থনীতিবিদগণ।

তাঁর প্রতিষ্ঠিত গ্রামীণ ব্যাংক উচ্চ সুদে বাণিজ্যিক ব্যাংকের বিকল্প হিসাবে বিনা জামানতে দরিদ্র মানুষদের অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী করে গড়ে তুলতে এই ঋণের কর্মসূচি চালু করেন। সে হিসাবে এই সফলতার জন্য তিনি অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার পেতে পারতেন। শান্তিতে কেন, এমন প্রশ্ন উঠেছে দেশে-বিদেশে।

এছাড়া ড.ইউনূসের প্রতিষ্ঠিত গ্রামীণ ব্যাংকের উচ্চ সুদ পরিশোধ করতে যেয়ে অনেক হত দরিদ্র মানুষ তাদের ভিটে বাড়ি বিক্রি করে আরও নিঃস্ব হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে নিজ দেশে। এমনকি গ্রামীণ ব্যাংকের ঋণ পরিশোধের জন্য শিশু সন্তান অপহরণের মত ঘটনা ঘটেছে বলেও বাংলাদেশের গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয় ওয়াশিংটন পোস্টের ওই প্রতিবেদনে।

উল্লেখ্য, নরওয়ের মোবাইল ফোন কোম্পানি 'টেলিনর'কে গ্রামীণ ফোনের বিলিয়ন ডলারের ব্যবসায়ীক পার্টনার করার পুরস্কার হিসেবে প্রফেসর ইউনূসের শান্তিতে নোবেল পুরস্কার কিনা সেসময় এমন প্রশ্ন উত্থাপন করে খোদ নরওয়ের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেল এনআরকে।

বিষয়ঃ বাংলাদেশ

Share This Article


ব্যাংক খাত নিয়ে পরিকল্পিত অপপ্রচার!

বিএনপির মহাসচিব নিয়োগে তারেকের সাথে তৃণমূলের মতবিরোধ!

যত মার্কিন কর্মকর্তাই আসুন বিএনপির আশাবাদী হওয়ার ন্যূনতম কারণ নেই!

দল পুনর্গঠনে সরকার বিরোধিতার নতুন কৌশলে জাতীয় পার্টি!

উপজেলা নির্বাচন : বিএনপির ৭ জনের জয়ে বেকায়দায় স্থানীয় দায়িত্বশীলরা!

বিএনপির আন্দোলন: ভারত বিরোধিতাই মুখ্য হয়ে উঠছে!

বিএনপি নেতারা ক্লান্ত: জানালেন গয়েশ্বর

বিবিসি প্রতিবেদন: তৃণমূলের উপর বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্বের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে প্রশ্ন উঠছে!

কেন গরমে নয় আন্দোলন: জানালেন মান্না

উপজেলা নির্বাচন: 'জয়ী-বহিষ্কৃতদের' গোপনে সমর্থন জানাচ্ছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা!

সাত জানুয়ারির নির্বাচনে যেতে মোটা অংকের টাকা দাবি করেছিলেন মান্না!

বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে বড় পরিবর্তন আসছে: বিবিসির প্রতিবেদন