নতুন ‘অগ্নিপরীক্ষায়’ খালেদা, দোটানায় বিএনপি!

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ বিকাল ০৩:৩৬, রবিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৯
খালেদা জিয়া -ফাইল ছবি
খালেদা জিয়া -ফাইল ছবি
  • ইতিবাচকভাবে দেখছে বিএনপির একাংশ।
  • আইনমন্ত্রীর মন্তব্য খুব গুরুত্ব নিয়ে দেখছে বিএনপি।
  • খালেদা জিয়ার রাজনীতি করার বাতচিৎকে টোপ বা ফাঁদ হিসেবে দেখছেন অনেকে।
  • রাজনীতির ইস্যুটি ‘বাঁচা-মরার’ পরীক্ষার মতো হয়ে দাঁড়িয়েছে অসুস্থ খালেদার।

খালেদা জিয়ার রাজনীতি করা না করা এখন ‘টক অব দ্য কান্ট্রি। তার রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে কোনো বাধা নেই; সরকারের তরফ থেকে এমন বক্তব্যের পাশাপাশি ভিন্ন বক্তব্যও এসেছে। ফলে বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ ও দোটানায় রয়েছে মাঠের বিরোধী দল বিএনপি। দণ্ডিত খালেদার রাজনীতিতে ফেরা না ফেরা যেন ‘অগ্নিপরীক্ষা’ হয়ে দাঁড়িয়েছে দলটির জন্য। 

দলটির নেতারা জানান, সপ্তাহখানেক ধরে খালেদা জিয়াকে রাজনীতিতে ফেরানোর কথা চলছে সরকারি মহলে। বিষয়টি ইতিবাচকভাবেও দেখছে বিএনপির একাংশ। যদিও তারা আইনমন্ত্রীর মন্তব্য নিয়ে সরকারের দুরভিসন্ধির কথা বলছেন। খালেদা জিয়াকে নিয়ে মন্ত্রীদের এমন মন্তব্য কৌশল বলেও মনে করছেন কেউ কেউ।

বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ কয়েকজনসহ তৃণমূল নেতাদের অনেকেই মনে করছেন, খালেদা জিয়া রাজনীতিতে ফিরলে যেমনি আন্দোলন চাঙা হবে, তেমনি জনসম্পৃক্ততাও অনেক বাড়বে; এমনকি গণঅভ্যুত্থানের সম্ভাবনাও রয়েছে। আর এটা বিএনপির এতদিনের চাওয়া ছিল। তাই আন্তর্জাতিক চাপ বা অন্য যেকোনো কারণেই হোক সরকারের তরফ থেকে যেহেতু সবুজ সংকেত মিলেছে, বিষয়টিকে গুরুত্ত্ব দিয়ে বেগম জিয়াকে রাজনীতিতে ফেরানো উচিত।

একই কথা বলেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির প্রভাবশালী একজন সদস্যও। তিনি বলেছেন, সম্প্রতি আইনমন্ত্রীর মন্তব্য খুব গুরুত্ব নিয়ে দেখছে বিএনপি। এ নিয়ে লন্ডনে থাকা তারেক রহমানের সঙ্গেও আলোচনা চলছে। তার সিদ্ধান্ত পেলেই রাজনীতিতে ফেরার সিদ্ধান্ত নেবেন খালেদা জিয়া।

তবে খালেদা জিয়ার রাজনীতি করার বাতচিৎকে টোপ বা ফাঁদ হিসেবে দেখছেন বিএনপির অপর একটি অংশ। তাদের মতে খালেদা জিয়ার রাজনীতি ইস্যুটি সরকারের নতুন ফাঁদ বা চাল হতে পারে। তাদের ফাঁদে পা দিলে আরও গভীর  সংকটে পড়তে হতে পারে বিএনপিকে। কেননা বেগম জিয়া মাঠে নামলেই পরিস্থিতি অন্যরকম হয়ে যেতে পারে। চলমান আন্দোলনে উত্তাপ ছড়িয়ে পড়তে পারে এবং অনেক ক্ষেত্রে তৃণমূল কর্মীরা নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে পড়লে তৃতীয়পক্ষ সেই সুযোগ নিতে পারে। এমনকি পরিস্থিতি ২০১৩-১৪ সালের মতোই হয়ে যেতে পারে। ফলে দেশ-বিদেশে বিএনপি রাজনৈতিকভাবে চাপে পড়বে। তাই বিষয়টিকে আপাতত এড়িয়ে চলার পক্ষেই মত তাদের।

দলটির নীতিনির্ধারকরা জানান, শর্তযুক্ত জামিনে প্রায় তিন বছর ধরে বাসায় রয়েছেন খালেদা জিয়া। তাকে নিয়ে এতদিন কোনো কিছু না শোনা গেলেও নির্বাচন ঘনিয়ে আসায় বিভিন্ন ধরনের বক্তব্য দিচ্ছেন মন্ত্রীরা। খালেদার রাজনীতি নিয়ে আইনমন্ত্রীর মন্তব্যে আশা জোগালেও তথ্যমন্ত্রীর কথায় হতাশা দেখছে বিএনপি। এছাড়া রাজনীতির ইস্যুটি ‘বাঁচা-মরার’ পরীক্ষার মতো হয়ে দাঁড়িয়েছে অসুস্থ খালেদার। তিনি রাজনীতিতে ফিরতে চাইলেও বাধার দেয়াল হচ্ছেন তারেক রহমান। কারণ লন্ডনে থাকা তারেকের কথাই এখন বিএনপি চলছে। ছেলের পক্ষে সবুজ সংকেত পেলেই মন্ত্রীদের কথায় সায় দেবেন খালেদা জিয়া।

Share This Article


উপজেলা নির্বাচন বর্জন : লাভের চাইতে ক্ষতি বেশি বিএনপির!

উপজেলা নির্বাচন নিয়ে সংকটে বিএনপি: প্রকাশ্য বিদ্রোহ!

ফের কূটনীতিকদের দৌড়ঝাঁপ: ব্রিটিশ ও মার্কিন কূটনীতিকদের তৎপরতা শুরু!

বিশ্ববাজারে ভোজ্য তেলের দাম কি কমেছে?

দেশের মানুষের ‘নিরাপত্তা’ নিয়ে ইউনুসের দুশ্চিন্তা: সোশ্যাল মিডিয়ায় হাস্যরস!

মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে এক অবিস্মরণীয় দিন ১৭ এপ্রিল

আন্দোলন নিয়ে শরিকদের কোনো দিক নির্দেশনা দিতে পারছে না বিএনপি!

কখনোই যাকাত-ফেতরা দেননা ড. ইউনুস!

বিএনপির আন্দোলনে জনসম্পৃক্ততা ছিলো না বলেই সরকার পতন হয়নি: শিবির সভাপতি

পুরস্কার নিয়ে ড. ইউনূসের চালাকিতে ইউনেস্কোর বিস্ময়!

মুজিবনগর সরকারের দক্ষতায় ৯ মাসে হানাদার মুক্ত হয় বাংলাদেশ

সামরিক শাসকের অধীনে রাজনীতিতে যুক্ত হওয়া ইউনূসের মুখে গণতন্ত্র!