রেমিট্যান্স না পাঠাতে প্রবাসে প্রচারণায় জামায়াত

জামায়াত-শিবির সব সময় দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। দেশে এবং দেশের বাহিরে বসে জামায়াত-শিবির এবং তাদের দোসররা প্রতিনিয়ত দেশবিরোধী অপপ্রচার, মিথ্যাচার এবং গুজবে লিপ্ত। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে থেকে শুরু করে বিভিন্ন মাধ্যমে তাদের এই অপপ্রচার, মিথ্যাচারগুলো সাধারণ জনগণের মাঝে ছড়িয়ে দিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করার প্রচেষ্টায় লিপ্ত। জামায়াত-শিবির সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে 'বাশেরকেল্লা' নামের একটি পেইজ থেকে বিভিন্ন ধরণের গুজব এবং মিথ্যাচার ছড়ায়। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের সময় জামায়াত-শিবির বিভিন্ন ধরণের গুজব এবং অপপ্রচার চালায়।

 

সাঈদীর রায় ঘোষণার পর চট্টগ্রামে তারা মসজিদের মাইক ব্যবহার করে জামায়াত-শিবির বিভিন্ন গুজব ছড়িয়ে মানুষকে উত্তেজিত করে তুলে। তারা কখনও সাঈদীকে চাঁদে দেখা যাচ্ছে, আবার কখনও শেখ হাসিনা ভারতে পালিয়ে যাচ্ছে-তাকে ধরতে হবে, কখনও এলাকার বয়োজ্যেষ্ঠ আলেম-ওলামাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে এ ধরনের বিভিন্ন বিভ্রান্তি ছড়িয়ে দেয়। এতে সাধারণ মানুষ উত্তেজিত ও অতি উৎসাহী হয়ে নাশকতায় যোগ দেয়। কাদের মোল্লার ফাঁসির রায় কার্যকরের পর জামায়াত-শিবিরের ফেসবুক পেজ থেকে হেফাজতে ইসলামের আমির আহমদ শফীকে গ্রেপ্তারের গুজব সৃষ্টি করা হয়।

সাম্প্রতিক সময়ে অস্থির অবস্থা বিরাজ করছে বিশ্ব অর্থনীতিতে। করোনার প্রকোপ, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে এই সঙ্কট তৈরি হয়। আর এই সঙ্কটকে এখন কাজে লাগিয়ে দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত জামায়াত-শিবির। দেশে বর্তমান সঙ্কটের মধ্যে প্রধান আশার আলো রেমিট্যান্স। সেই রেমিট্যান্স যেন বাংলাদেশে না আসে এজন্য জামায়াত-শিবির সৌদি আরব, কাতার, কুয়েত, আরব আমিরাত, বাহরাইন, জর্ডানসহ মধ্যপ্রাচ্যের অনেক দেশের মধ্যে অপপ্রচার চালাচ্ছে। কারণ, এই দেশগুলোতে জামায়াত-শিবির পরিচালিত বিভিন্ন ধরণের প্রতিষ্ঠান রয়েছেন।

ফলে ওই দেশগুলোতে বসবাসরত প্রবাসীরা যেন বাংলাদেশে টাকা না পাঠায় সেজন্য তারা বিভিন্নভাবে প্ররোচনা দিচ্ছে। তারা তাদের বলছে যে, তারা দেশে যে টাকা পাঠায় সেটি তাদের পরিবার-পরিজন ঠিকমত পায় না এবং পাবে না। কারণ সরকারের এখন টাকা নেই, টাকা পাঠালে সরকার ওই টাকা আত্মসাৎ করে নিবে। এর ফলে কিছু প্রবাসী বিভ্রান্ত হয়। জামায়াত-শিবিরের এই অপপ্রচার এবং গুজবের প্রভাব পড়ে রেমিট্যান্সে। করোনা সঙ্কটের সময়ও যে রেমিট্যান্স প্রবাহ ছিলো গত কয়েক মাসে দেখা যায় যে তা কমে গেছে।

 

এদিকে, জামায়াত-শিবিরের হুন্ডি ব্যবসায়ীরা এই ধরনের অপপ্রচার চালিয়ে প্রবাসীদের জানাচ্ছে যে, তাদের উপার্জিত অর্থ হুন্ডির মাধ্যমে পাঠালে তাদের পরিবার-পরিজন তা পাবে। এইভাবে এখন জামায়াত-শিবির দেশবিরোধী অপপ্রচার এবং গুজব ছড়ানোর মাধ্যমে দেশকে বাস্তবিক অর্থে সঙ্কটে ফেলার চেষ্টা করে চলেছে। আর জামায়াত-শিবিরের এই অপপ্রচার, মিথ্যাচার এবং গুজবে মদদ দিচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যের বেশকয়টি দেশ।

Share This Article


খালেদা জিয়ার ২ মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি পেছালো

নকল চাবিতে ৫০০ মোটরসাইকেল চুরি

থাইল্যান্ডের ১৭ স্থানে একযোগে বিস্ফোরণ-আগুন

সৌদিতে অশালীন পোশাক পড়লে ও উঁচু স্বরে কথা বললে জরিমানা

কোলন ক্যানসার বোঝার উপায়

দীর্ঘ ৯ মাস পর দেশে ফিরলেন শাকিব খান

ছেলের গুলিতে মা নিহত : মাইনুলকে আসামি করে মামলা

তেলের দাম বাড়ায় সুযোগ নিচ্ছেন ব্যবসায়ীরা : বাণিজ্যমন্ত্রী

গুজরাটে গর্ভবতী মুসলিম নারীকে গণধর্ষণে দণ্ডিত ১১ আসামীকে ক্ষমা

রিফাত হত্যা: আপিলের রায়ে যাবজ্জীবন দণ্ড পাওয়া সব আসামি খালাস

ভক্তকে চড় মারলেন সামান্থা

স্কুলছাত্রী ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা, আটক দুলাভাই

মহামারি আকার ধারণ করেছেন জিম্বাবুয়ে হাম, ১৫৭ শিশুর মৃত্যু

চট্টগ্রাম নৌবাহিনীর ঘাঁটিতে বোমা হামলা, ৫ জেএমবির মৃত্যুদণ্ড

৭৫০ বিলিয়ন ডলারের বিলে বাইডেনের স্বাক্ষর