বরিস জনসনের জন্য হাত তুললেন না কেউ

যুক্তরাজ্যের কনজারভেটিভ পার্টির নেতা এবং পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হতে প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন কনজারভেটিভ পার্টির নেতারা। প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন প্রধানমন্ত্রিত্ব ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পর নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

এখন প্রধানমন্ত্রী ও কনজারভেটিভ পার্টির প্রধান হওয়ার লড়াইয়ে টিকে আছেন পাঁচজন।

তারা হলেন ঋসি সুনাক, লিস ট্রাস, পেনি মরডান্ট, কেমি বাদেনোচ এবং টম টাগেনদাট।

কনজারভেটি পার্টির এ পাঁচ নেতা প্রচার-প্রচারণার অংশ হিসেবে একটি টিভি বিতর্কে অংশ নেন।

সেখানে তাদের জিজ্ঞেস করা হয়, তাদের মধ্যে কি কেউ আছেন যিনি প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে কোনো দায়িত্ব দেবেন। যদি দেওয়ার ইচ্ছা থাকে তাহলে যেন হাত উঠিয়ে দেখান।

তবে উপস্থাপকের এমন আহ্ববানের পর বিতর্কে অংশ নেওয়া পাঁচজনের কেউ হাত তোলেননি। মানে তারা কেউই প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর বরিস জনসনকে কোনো দায়িত্ব দেবেন না।

এদিকে এ বিতর্কটিতে সাবেক চ্যান্সেলর ঋসি সুনাক এবং বর্তমান পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিস ট্রাসের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। লিস ট্রাস দাবি করেন, সুনাক চ্যান্সেলর অবস্থায় কর বাড়িয়েছেন, যা যুক্তরাজ্যের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধিকে আটকে দেবে।

তাছাড়া অন্য প্রার্থীরাও একে অপরের বিরুদ্ধে বিষেদাগার করেছেন। অথচ তারা সবাই একই দলের। কয়েকদিন আগেও একই  মন্ত্রীসভায় পাশাপাশি বসে বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।

সূত্র: বিবিসি

Share This Article


৩ দিনের ব্যবধানে আবার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ল উত্তর কোরিয়া

তালেবানকে একঘরে করে রাখলে পরিণতি হবে ভয়াবহ: বিলাওয়াল ভুট্টো

থাইল্যান্ড থেকে কানাডা গেলেন মিয়ানমারের সেই বিউটি কুইন

ট্রেন আসতেই রেললাইনে শুয়ে পড়েন আলী হোসেন!

ইরাকের কুর্দিস্তানে ইরানি হামলায় নিহত ১৩

সহপাঠীকে বিয়ে করলেন ক্রিকেটার শামিম পাটোয়ারী

মিয়ানমারে আপত্তিকর ছবি প্রকাশ, মডেলের ছয় বছরের জেল

অং সান সুচির আরও ৩ বছরের কারাদণ্ড

মানবতার ছদ্মবেশে ভোটের রাজনীতিতে জামায়াত!

অপরিবর্তিত থাকতে পারে দিন ও রাতের তাপমাত্রা

বুবলীর বেবি বাম্প প্রকাশের পরই শাকিব খান অসুস্থ

ভারতের শক্তিশালী গ্রামে স্বাগত

ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ‘সাইবার হামলায়’ কোটি মানুষের তথ্য চুরি

বিয়ে করলেন তরুণ অলরাউন্ডার শামীম পাটোয়ারী

বিশ্বের জন্য অস্ত্র উৎপাদনের ঘোষণা ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর