মেগা প্রকল্পে কর্মরত বিদেশীদের অপমৃত্যু কেন?

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ বিকাল ০৪:৫৮, সোমবার, ১৩ জুন, ২০২২, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

২০১৬ সালে ঢাকার হোলি আর্টিজেন হামলায় যে ৭ জন জাপানি নাগরিক নিহত হয়েছে তাদের মধ্যে ৬ জনই ছিলেন ঢাকার মেট্রোরেল প্রকল্পের পরামর্শক। এই হামলার ফলে প্রায় ৬ মাস পিছিয়ে গিয়েছিলো ঢাকার মেট্রোরেলের কাজ।

এরপর বিদেশি প্রকল্পে বড় কোন দুর্ঘটনা না ঘটলেও দেশের মেগা প্রকল্পে নিয়োজিত বিদেশি নাগরিকদের মৃত্যু থেমে থাকেনি। প্রায়ই ঘটছে বিদেশি নাগরিকদের মৃত্যুর ঘটনা, যার বেশিরভাগ মৃত্যুই আকস্মিক ও রহস্যজনক।

সর্বশেষ পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায় নির্মাণাধীন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে কর্মরত ইভানভ অ্যান্টন (৩৩) নামে এক রুশ নাগরিকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।  

উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে, এ নিয়ে গত এক সপ্তাহে ৫ জন রুশ নাগরিকের মৃত্যু হলো। এবং প্রতিটা মৃত্যুর প্যটার্নও একইরকম ছিলো।

 

জানা গেছে, রবিবার (১২ জুন) রাতে ঈশ্বরদী উপজেলার প্রকল্পে কর্মরতদের আবাসন প্রকল্প গ্রিনসিটি ভবনের একটি কক্ষের লিফটের সামনে থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়। অ্যান্টন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের রোসেম নামে একটি প্রতিষ্ঠানে ইনস্টলার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

পুলিশ জানায়, রাতে গ্রিনসিটি আবাসিকের দুই নম্বর ভবনের ১২ তলার লিফটের সামনে কয়েকবার বমি করেন অ্যান্টন। এই খবর গ্রিনসিটি প্রকল্পসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে জানানো হয়। খবর পেয়ে প্রকল্পের চিকিৎসকরা এসে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এছাড়া বিগত কয়েক দিনের মধ্যে একইভাবে মৃত্যু হয়েছে  ভোরোটনিকভ আলেকজান্দ্রা (৫৫) নামের এক বিদেশি নাগরিকের। যিনি ‘নিকিমথ’নামের একটি রুশ সাব ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ছিলেন। এছাড়া মেকানিক্যাল রুশ ইঞ্জিনিয়ার চুকিন পাভেল, তলমাসেফ ভাইয়াসেলভের, শাকিরভ আলেক্সেই, বারচেনকো আলেক্সেইয়া একইভাবে মৃত্যুবরণ করেছেন।

যদিও অনেকেই বলছেন যে দেশীয় মদ খেয়েই তাদের মৃত্যু হচ্ছে তবে এটিও তেমন গ্রহণযোগ্য মত নয়।

অন্যদিকে  গত ১১ ডিসেম্বর বনানীর ২৩ নম্বর সড়কের ৮২ নম্বর ভবনের পাশ থেকে গাউজিয়ান হুইয়ের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ভবনের পাশের ফাঁকা জায়গায় মাটিতে পুঁতে রাখা হয়েছিল তার মরদেহ। ৪৭ বছর বয়সী গাউজিয়ান হুই পায়রা বন্দর ও পদ্মা সেতু নির্মাণ কাজে পাথর সরবরাহ করতেন৷  ময়না তদন্তের প্রতিবেদনে বলা হয়, তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে৷ কিন্তু কারা এই হত্যাকাণ্ড ঘটালো সেটিও খতিয়ে দেখা দরকার।  

এছাড়াও বছরখানেক আগে হি লুকান নামের এক চীনা শ্রমিককের লাশ পদ্মা নদী থেকে উদ্ধার করা হয়েছিলো। ধরাণা করা হয় কেউ তাকে পানিতে ফেলে দিয়েছিলো।

দেশে বিদেশি নাগরিকদের মৃত্যু অস্বাভাবিক কিছু নয়, কিন্তু যখন দেশের উন্নয়নমূলক গুরুত্বপূর্ণ মেগা প্রকল্পের সাথে যুক্ত বিদেশি নাগরিকদের পরপর অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটে তখন সেটিকে মোটেই হালকাভাবে নেয়ার সুযোগ থাকেনা।

রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ এসব প্রকল্পে জড়িত ব্যক্তিদের অস্বাভাবিক মৃত্যু যদি চলতেই থাকে তবে সেটি একদিকে যেমন রাষ্ট্রের মান মর্যাদাকে খাটো করে, প্রকল্পের কাজকে বাধাগ্রস্ত করে , তেমনই রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের সম্ভাবনারও ইঙ্গিত বহন করে।কেননা  বর্তমান সরকারের গৃহীত এসব প্রকল্পের বিরুদ্ধে শুরু থেকেই অনেক ষড়যন্ত্রের ঘটনা ঘটেছে দেশি ও বিদেশি কুচক্রীমহল কতৃক।আর পদ্মাসেতু তার প্রকৃষ্ট উদাহরণ। তাই এসব ঘটনাকে নিছক দুর্ঘটনা ভেবে বসে থাকার কোন অবকাশ নেই।সরকারকে অবশ্যই এ বিষয়ে তদন্ত করে,আর যাতে এমন ঘটনা না ঘটে তার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

বিষয়ঃ বাংলাদেশ

Share This Article


জার্সি গায়ে অস্ত্রধারীর আসল পরিচয় ফাঁস!

কৃতী ৫ নারীর হাতে রোকেয়া পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী

আন্তর্জাতিক জেনোসাইড স্মরণ ও প্রতিরোধ দিবস আজ

শুভ জন্মদিন সায়মা ওয়াজেদ পুতুল

রোকেয়া দিবস: আজও তিনি নারীসমাজের পথপ্রদর্শক

পুলিশের ওপর আক্রমণে ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হয়েছিল : তথ্যমন্ত্রী

বাংলাদেশ ও ভারতের বহুমুখী সম্পর্ক আরও শক্তিশালী হচ্ছে

যে কোন উন্মুক্ত স্থানে সমাবেশ করতে পারবে বিএনপি : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর সাহসী নেতৃত্বে ‘সোনার বাংলার’ দ্বারপ্রান্তে দেশ: সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

যুক্তরাষ্ট্রে যাচ্ছে প্রথম ধাপে ২৪ জন রোহিঙ্গা

নেতাকর্মীরা প্রস্তুত থাকুন, কেউ যেনো মানুষের ক্ষ‌তি কর‌তে না পা‌রে : প্রধানমন্ত্রী

রেলের নতুন মহাপরিচালক কামরুল আহসান