সাড়ে ৭ বছরে কাজ করেছেন ১৪ হাজার শ্রমিক-প্রকৌশলী

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ সকাল ০৮:৫৩, শনিবার, ২৫ জুন, ২০২২, ১১ আষাঢ় ১৪২৯

অবশেষে স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধনের ক্ষণ গণনা শুরু হয়েছে। দেশের সবচেয়ে বড় অবকাঠামো পদ্মা সেতুর উদ্বোধন হতে যাচ্ছে আগামী শনিবার (২৫ জুন)। নানা চড়াই-উৎড়াই পেরিয়ে বহুল প্রতীক্ষিত পদ্মা সেতুর দিয়ে শুরু হতে যাচ্ছে যানবাহন চলাচল।

পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয়েছিল ২০১৪ সালের ২৬ নভেম্বর।  চলতি বছরের ২২ জুন আর সেই কাজ সম্পন্ন হয়। এখন শুধু উদ্বোধনের অপেক্ষা।

পদ্মা সেতুর প্রকৌশলী সূত্রে জানা গেছে, সেতুটির নির্মাণ শেষ হতে সময় লেগেছে ৯০ মাস ২৭ দিন কিংবা ২ হাজার ৭৬৫ দিন কিংবা ৭ বছর ৬ মাস ২৭ দিন। দিনরাত কাজ করেছেন প্রায় ১৪ হাজার দেশি-বিদেশি শ্রমিক, প্রকৌশলী ও পরামর্শক। এর মধ্যে প্রায় এক হাজার ২০০ দেশি প্রকৌশলী, দুই হাজার ৫০০ বিদেশি প্রকৌশলী, প্রায় ৭ হাজার ৫০০ দেশি শ্রমিক, আড়াই হাজার বিদেশি শ্রমিক এবং প্রায় ৩০০ দেশি-বিদেশি পরামর্শক কাজ করেছেন।

প্রকৌশলীরা জানান, চীন, কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, মালয়েশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, জার্মানি, ইংল্যান্ড, কোরিয়া, নেদারল্যান্ড, নিউজিল্যান্ডসহ ২০টি দেশের প্রকৌশলীরা এখানে কর্মরত ছিলেন।

এ ছাড়া, মুন্সিগঞ্জ, শরিয়তপুর, মাদারীপুর, গাইবান্ধা, যশোর, নোয়াখালী, বরিশাল, বগুড়া, টাঙ্গাইলসহ ১৫-২০টি জেলার মানুষ পদ্মা সেতুতে শ্রমিক হিসেবে কাজ করেছেন। কয়েকটি শিফটে একেকজন শ্রমিক দৈনিক ৮ ঘণ্টা কাজ করে। নির্দিষ্ট সময়ের বাইরেও অনেকে কাজ করেছে। তাদের অতিরিক্ত মজুরিও দেওয়া হয়েছে। তবে সেতু নির্মাণে শুরুতে প্রকৌশলী ও শ্রমিকদের যে সংখ্যা ছিল, তা বর্তমানে কমে এসেছে। কারণ, বিভিন্ন ধাপের কাজ শেষ হয়ে গেলে তাদের আর দরকার হয় না।

প্রকৌশলীরা বলছেন, এ সেতু নির্মাণের শুরু থেকে আজ পর্যন্ত কাজ করতে গিয়ে যেসব অভিজ্ঞতা হয়েছে, তা সামনে দেশকে এগিয়ে নিতে ভূমিকা রাখবে। যারা এখানে কাজ করেছেন, তারা দেশের অন্যান্য বড় স্থাপনা নির্মাণে যেকোনো বাধা সহজেই অতিক্রম করতে পারবে।

পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের প্রকৌশলীদের সঙ্গে দীর্ঘদিন কাজ করার সুযোগ হয়েছে। এমন অনেক প্রযুক্তি এখানে ব্যবহার হয়েছে, যা পৃথিবীর হাতেগোনা কয়েকটি সেতুতে ব্যবহার হয়েছে। এতে তারা ভিন্নধর্মী ও বাস্তব অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পেরেছে।

Share This Article


সর্বোচ্চ আদালতকে পাশ কাটিয়ে সরকার কিছুই করবে না: আইনমন্ত্রী

যুক্তরাষ্ট্রের ‘ভিত্তিহীন দাবি’ সহিংসতা উসকে দিতে পারে

সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠে স্বঘোষিত ‘রাজাকার,’ কেমন মেধাবী তারা?

সর্বোচ্চ আদালতকে পাশ কাটিয়ে সরকার কিছুই করবে না

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যকে বিকৃতভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে : কাদের

যুক্তরাষ্ট্রের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানাল বাংলাদেশ

মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

'রাজাকার' পরিচয় দিতে একবারও লজ্জা হলো না তাদের

বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার সাথে 'ওয়ান ইলেভেন' সরকারের আচরণ যেমন ছিল

হলে ফেরার অনুরোধ প্রত্যাখ্যান ঢাবি শিক্ষার্থীদের

কোটা এখন রাজনৈতিক আন্দোলন হয়ে গেছে: জনপ্রশাসনমন্ত্রী

পরিবেশ শান্ত করতে ঢাবিতে পুলিশ মোতায়েন