কোটা সংস্কারে সরকার কতটা আন্তরিক?

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ বিকাল ০৩:১৫, মঙ্গলবার, ৯ জুলাই, ২০২৪, ২৫ আষাঢ় ১৪৩১
  • সব কোটা বিলুপ্ত করে ২০১৮ সালে পরিপত্র জারি করে সরকার
  • ২০২১ সালে পরিপত্রের বিরুদ্ধে রিট আবেদন
  • আবেদনের প্রেক্ষিতে রায় দেয় আদালত
  • রায়ে সরকারের পরিপত্র অবৈধ ঘোষণা করে আদালত
  • শেখ হাসিনা সরকার কোটা সংস্কারে আন্তরিক

২০১৮ সালে সরকারি চাকুরিতে কোটা সংস্কারের দাবি উঠে দেশজুড়ে। কোটা ৫৬ থেকে ১০ শতাংশে নামিয়ে আনার দাবিতে দেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আন্দোলন শুরু হয়।

শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে সব কোটা বিলুপ্ত করে পরিপত্র জারি করে সরকারের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।  

২০২১ সালে কোটা বাতিল চ্যালেঞ্জ করে উচ্চ আদালতে রিট করেন মুক্তিযোদ্ধার সাত সন্তান। আদালতে রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে রায় দেয় আদালত। রায়ে চলতি বছরের ৫ জুন সরকারের পরিপত্র অবৈধ ঘোষণা করেন আদালত।

পরে এই রায় স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে আবেদন করে সরকার। কিন্তু গত ৯ জুন প্রাথমিক শুনানির পর আবেদনটি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে পাঠানো হয়।

এই অবস্থায় ১ জুলাই থেকে কোটা বাতিলে আন্দোলন করছে শিক্ষার্থীরা। অচল করে দেয়া হয় শাহাবাগসহ আশপাশের এলাকা। 

কোটা সংস্কারের পক্ষে শেখ হাসিনার সরকার খুবই আন্তরিক। সরকার আন্তরিক বলেই শিক্ষার্থীদের পক্ষে আপিল করে রাষ্ট্রপক্ষ। দেশের সর্বোচ্চ আদালতে বিষয়টি বিচারাধীন থাকা বিষয়টি সরকার দ্রুত সমাধান করবে। বাস্তব পরিস্থিতি বিবেচনা করে উচ্চ আদালত রায় দেবেন বলে আশা বিশ্লেষকদের। 

বিষয়ঃ বাংলাদেশ

Share This Article

আন্দোলনকারীদের মারধরে র‍্যাব সদস্যের অবস্থা সংকটাপন্ন

৪ ঘণ্টায়ও নেভেনি বিটিভির আগুন

ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে প্রস্তুত হয়ে যান : ওবায়দুল কাদের

শিবির-ছাত্রদলের নির্মমতা: চট্টগ্রামে ছাদ থেকে ফেলে দেয়া হয় ১৫ ছাত্রলীগ কর্মীকে

ধৈর্যের পরীক্ষা দিচ্ছি, এটা দুর্বলতা নয়: ডিবিপ্রধান হারুন

অহেতুক কিছু কথায় মূল্যবান জীবন ঝরে গেল : প্রধানমন্ত্রী

সর্বোচ্চ আদালতের রায়ই আইন হিসেবে গণ্য হবে: জনপ্রশাসনমন্ত্রী

আইনি প্রক্রিয়ায় সমস্যা সমাধানের সুযোগ রয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

কোটার আড়ালে চট্টগ্রামে শিবির নেতার নির্দেশেই হত্যাকাণ্ড?

আন্দোলন ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে ষড়যন্ত্র করছে: ডিবিপ্রধান