লেবার পার্টির বিজয়ে যুক্তরাজ্যে তারেকের বসবাস কঠিন হয়ে গেল কী?

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ দুপুর ১২:৫৭, সোমবার, ৮ জুলাই, ২০২৪, ২৪ আষাঢ় ১৪৩১
  • ২০০৭ সালে মুচলেকা দিয়ে লন্ডনে যান তারেক রহমান
  • মুচলেকায় আর রাজনীতি না করার কথা উল্লেখ করেন
  • লন্ডনে গিয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান পদে বসেন
  • লন্ডনে বসে নাশকতা, চাঁদাবাজি, অর্থ-পাচার করছেন
  • লেবার পার্টির নিঙ্কুশ জয়ে বেকায়দায় পড়বেন তারেক
  • মন্ত্রী হতে যাচ্ছেন বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপ

যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্ট নির্বাচনে বড় ব্যবধানে জয় পেয়েছে লেবার পার্টি। দীর্ঘ ১০ বছর পর সরকার গঠন করতে যাচ্ছে দলটি। আর এতেই দেশটিতে থাকা কঠিন হয়ে পড়লো বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের। কেননা দেশটির নতুন ক্ষমতাসীনরা দীর্ঘদিন ধরেই তারেক জিয়ার থাকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে আসছিল। এমনকি রাজনৈতিক আশ্রয়ে থাকা ব্যক্তিরা যুক্তরাজ্যে বসে রাজনীতি করতে পারে কিনা পার্লামেন্টে এই প্রশ্নও উত্থাপন করেছিলেন লেবার পার্টির একাধিক এমপি।

সূত্রমতে, সদ্য বিদায়ী কনজারভেটিভ পার্টির সহযোগিতার কারণেই রাজনৈতিক আশ্রয়ে তারেক রহমান থাকেন। এর আগে তার বিরুদ্ধে অর্থ পাচারের অভিযোগ উঠলেও তা তদন্ত করেনি তৎকালীন সরকার। এছাড়া তারেক রহমান রহমান লন্ডনে একটি কোম্পানি খুলে অবৈধভাবে লেনদেন করার অভিযোগও তদন্তের উদ্যোগ নেয়া হয়েছিল। কিন্তু ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির নেতাদের অনাগ্রহের কারণে তদন্ত ধামাচাপা দেয়া হয়।

তারেক রহমানের এমন অবৈধ কাণ্ডে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে লেবার পার্টির বহু সদস্য বক্তব্য রেখেছিলেন। দলটির অভিবাসন নীতিতে তিনটি বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে। প্রথমত, কোন দণ্ডিত ব্যক্তি যুক্তরাজ্যের ভূখণ্ডে থাকতে পারবে না। দ্বিতীয়ত, মানবিক বিবেচনায় রাজনৈতিক আশ্রয়ে থেকে রাজনীতি করা যাবে না। তৃতীয়ত, রাজনৈতিক আশ্রিতদের আয়-ব্যয়ের হিসেব নিয়মিত যাচাই-বাছাই করা হবে।  

তথ্য মতে, ২০০৭ সালে বাংলাদেশ সরকারের কাছে মুচলেকা দিয়ে লন্ডনে যান তারেক রহমান। মুচলেকায় আর কখনো রাজনীতি করবেন না উল্লেখ করেন। কিন্তু লন্ডনে গিয়ে তিনি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন। এমনকি তার বিরুদ্ধে লন্ডনে নাশকতা, চাঁদাবাজি, অর্থ-পাচারসহ একাধিক অভিযোগ রয়েছে। এবার লেবার পার্টি যেহেতু নিঙ্কুশ জয় পেয়েছে তাই তারেককে জবাবদিহিতার আওতায় আনবে নয়া সরকার।

এছাড়া বাংলাদেশের সঙ্গে সদ্য বিদায়ী কনজারভেটিভ সরকারই অবৈধ অভিবাসীদের কিংবা ‘ফাস্ট-ট্র্যাক’ তথা আসামি আদান-প্রদানের ব্যাপারে চুক্তি স্বাক্ষর করেছিল, যা কার্যকর হলে তারেকের লন্ডন থাকা সম্ভব হবে না। তাছাড়া আবারও লেবার পার্টির এমপি নির্বাচিত হয়েছেন বঙ্গবন্ধুর ছোট কন্যা শেখ রেহেনার মেয়ে টিউলিপ সিদ্দিক। এবার তিনি মন্ত্রী হতে পারেন। সেক্ষেত্রে বিষয়টি ব্রিটিশ সরকার আরো গুরুত্ব সহকারে নেবে। লেবার পার্টির বিজয়ে অনেক হিসেব-নিকেশ পরিবর্তন হবে। সবকিছু মিলিয়ে তারেক রহমানের রাজনৈতিক আশ্রয়ে যুক্তরাজ্যে থাকা আরো কঠিন হয়ে পড়বে বলে জানিয়েছেন কূটনীতিক ও আন্তর্জাতিক বিশ্লেষকরা।

Share This Article

আন্দোলনকারীদের মারধরে র‍্যাব সদস্যের অবস্থা সংকটাপন্ন

৪ ঘণ্টায়ও নেভেনি বিটিভির আগুন

ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে প্রস্তুত হয়ে যান : ওবায়দুল কাদের

শিবির-ছাত্রদলের নির্মমতা: চট্টগ্রামে ছাদ থেকে ফেলে দেয়া হয় ১৫ ছাত্রলীগ কর্মীকে

ধৈর্যের পরীক্ষা দিচ্ছি, এটা দুর্বলতা নয়: ডিবিপ্রধান হারুন

অহেতুক কিছু কথায় মূল্যবান জীবন ঝরে গেল : প্রধানমন্ত্রী

সর্বোচ্চ আদালতের রায়ই আইন হিসেবে গণ্য হবে: জনপ্রশাসনমন্ত্রী

আইনি প্রক্রিয়ায় সমস্যা সমাধানের সুযোগ রয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

কোটার আড়ালে চট্টগ্রামে শিবির নেতার নির্দেশেই হত্যাকাণ্ড?

আন্দোলন ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে ষড়যন্ত্র করছে: ডিবিপ্রধান


ঢাকা কলেজের ছাত্রের প্রাণহানি, সারা দেশে নিন্দার ঝড়

শিবির-ছাত্রদলের নির্মমতা: চট্টগ্রামে ছাদ থেকে ফেলে দেয়া হয় ১৫ ছাত্রলীগ কর্মীকে

আমরা সরকার পতন করেই ঘরে ফিরবো: গাজীপুর থেকে আগত শিবির কর্মী

কোটা আন্দোলনে জামায়াত-শিবির অনুপ্রবেশ, শিক্ষকদের মারধর

প্রধানমন্ত্রী'র বক্তব্যের মর্মার্থ বিকৃত করলো কারা

দুইজন নিহতের অসত্য দাবি যুক্তরাষ্ট্রের, কড়া প্রতিবাদ বাংলাদেশের

সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠে স্বঘোষিত ‘রাজাকার,’ কেমন মেধাবী তারা?

কোটা আন্দোলনে বিএনপির অর্থায়ন, সারা দেশে শিবিরের শক্ত নেটওয়ার্ক

ঢাবি ক্যাম্পাসে যেভাবে জড়ায় ছাত্রলীগ

'রাজাকার' পরিচয় দিতে একবারও লজ্জা হলো না তাদের

বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার সাথে 'ওয়ান ইলেভেন' সরকারের আচরণ যেমন ছিল

কোটা সংস্কার আন্দোলন: সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠে দাঁড়িয়ে কলঙ্কের পদচিহ্ন এঁকে দিলো যারা!