জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট ইস্যু পেয়েও সুযোগ হারাচ্ছে বিএনপি!

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ দুপুর ১২:০৭, শুক্রবার, ৭ জুন, ২০২৪, ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

দীর্ঘ ১৭ বছরের বেশি সময় রাষ্ট্র ক্ষমতার বাইরে বিএনপি। দলটি সরকার পতনের আন্দোলনের ডাক দিয়েও ব্যর্থ হচ্ছে বারবার। সফলতার মুখ যেন অধরাই থাকছে দলটির।সরকার পতন আন্দোলনের পেছনে যথার্থ কারণ ও যুৎসই ইসু না থাকায় সফলতার মুখ দেখেনি বিএনপি। তবে এবার জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ভাবে বিভিন্ন সংকটে সম্মুখীন সরকার। রিজার্ভ সংকট, ডলার সংকটের পাশাপাশি বেড়েছে গ্যাস, বিদ্যুত ও নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দামও। এতে সামগ্রিকভাবেই চাপে রয়েছে সরকার। কিন্তু এত সব জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট যুৎসই ইস্যু পেয়েও নিজেদের আন্দোলনে  জনসম্পৃক্ততা ঘটাতে পারেনি দলটি।

সূত্রমতে, দেশের অর্থনৈতিক সংকট, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, ভারতে এমপি আনার হত্যাকাণ্ড, সাবেক সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ ও পুলিশ প্রধান বেনজীর আহমেদ এর দুর্নীতিসহ বিভিন্ন ইস্যুতে তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলতে পারতো বিএনপি। এমনকি একটি সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করতে এসব ইস্যুই যথেষ্ট ছিলো। কিন্তু দলটি এসব ইস্যু  কাজে লাগাতে পুরোপুরি ব্যর্থ হচ্ছে। কেননা অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব, সঠিক নেতৃত্বের অভাব, অধিকাংশ নেতাকর্মীদের দেশের বাইরে অবস্থান এবং শরীকদের আস্থাহীনতা থাকায় বর্তমান প্রেক্ষাপটে আন্দোলনের জন্য অনুকূল পরিস্থিতি কাজে লাগানোর সামর্থ্য হারাচ্ছে দলটি।  

অন্যদিকে নতুন ইস্যু কাজে লাগিয়ে আন্দোলনের লক্ষ্যে সমমনা দলগুলোর সাথে সম্প্রতি বৈঠক করে বিএনপি। সেখানে শরিকরা বিএনপির অতীত কর্মকান্ড নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে। কেননা এর আগে কোনো কর্মসূচির সিদ্ধান্ত নিলে শরিকদের পাত্তা দিতো না দলটি। এমনকি যুগপতের অন্যতম দল জামায়াতের সাথেও রয়েছে বিএনপির দূরত্ব। এর আগে দলটির সাথে রাজপথে নেমে জামায়াতের নেতারা গ্রেপ্তার হলেও নীরব থেকেছে বিএনপি, যাকে ‘বিশ্বাসঘাতকতা’ হিসেবে দেখছে দলটির হাইকমান্ড। ফলে শরিকদের মাঝে আস্থার ঘাটতি তৈরি হয়। মূলতঃ এসব কারণেই ‘যুৎসই’ ইস্যু থাকলেও কার্যকর আন্দোলনে যেতে পারছে না বিএনপি।

সমালোচকরা বলছেন, বর্তমানে সরকার বিভিন্ন ইস্যুতে চতুর্মূখি চাপে রয়েছে। এটি সত্য। তবে সরকার আন্তর্জাতিক চাপে থাকলেও দেশের অভ্যন্তরে বিরোধীদের কোনো চাপ নেই। কেননা মাঠের বিরোধী দল বিএনপি নিজেই নানা সংকটে জর্জরিত। ফলে সরকারের বিপক্ষে বিভিন্ন ইস্যু থাকার পরেও তা কাজে লাগাতে ব্যর্থ হচ্ছে দলটি। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে , বিএনপিতে তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত নেয়ার মতো কেউ নেই। কারণ দলটির সব সিদ্ধান্ত আসে লন্ডন থেকে। আর দেশের বাহির থেকে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি উপলদ্ধি করা কখনোই সম্ভব নয়। ফলে সরকারের বিপক্ষে হাজারো ইস্যু থাকলেও তা কাজে লাগানোর মতো কোনো সাংগঠনিক শক্তি নেই দলটির।

Share This Article

আইনি প্রক্রিয়ায় সমস্যা সমাধানের সুযোগ রয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

আন্দোলনের সুযোগ নিয়ে কিছু মহল বেদনাদায়ক ঘটনা ঘটিয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

কোটার আড়ালে চট্টগ্রামে শিবির নেতার নির্দেশেই হত্যাকাণ্ড?

অহেতুক কিছু কথায় মূল্যবান জীবন ঝরে গেল : প্রধানমন্ত্রী

আন্দোলন ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে ষড়যন্ত্র করছে: ডিবিপ্রধান

নিহত সবুজের লাশ নিয়ে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

কোটা আন্দোলনের কর্মসূচি ঠিক করে দিচ্ছে বিএনপি-জামায়াত

কোটা আন্দোলনকারীদের তান্ডব:বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের হল পুড়ে ছাই

প্রধানমন্ত্রী সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন

চট্রগ্রাম মেডিকেলের অজ্ঞাত লাশকে শিক্ষার্থীদের লাশ বলে চালানোর চেষ্টা!


দুইজন নিহতের অসত্য দাবি যুক্তরাষ্ট্রের, কড়া প্রতিবাদ বাংলাদেশের

সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠে স্বঘোষিত ‘রাজাকার,’ কেমন মেধাবী তারা?

কোটা আন্দোলনে বিএনপির অর্থায়ন, সারা দেশে শিবিরের শক্ত নেটওয়ার্ক

ঢাবি ক্যাম্পাসে যেভাবে জড়ায় ছাত্রলীগ

'রাজাকার' পরিচয় দিতে একবারও লজ্জা হলো না তাদের

বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার সাথে 'ওয়ান ইলেভেন' সরকারের আচরণ যেমন ছিল

কোটা সংস্কার আন্দোলন: সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠে দাঁড়িয়ে কলঙ্কের পদচিহ্ন এঁকে দিলো যারা!

রাজাকার পরিচয় বহনকারীদের বাংলা ছাড়ার দাবি সারাদেশে

দেশে দেশে কোটা ব্যবস্থা

দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিটের ছাত্রদের মেধার এতো অধঃপতন!

শিক্ষার্থী আন্দোলন ফায়দা লোটার আত্মঘাতী কৌশল

যুক্তরাজ্যে থাকতে হলে রাজনীতি ছাড়তে হবে তারেককে!