বন্ধ করে দেয়া ১৪৮ ফেসবুক আইডি বা পেজ এর মালিক কে?

  নিউজ ডেস্ক
  প্রকাশিতঃ দুপুর ০১:৪৮, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন, ২০২৪, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

বন্ধ হওয়া অ্যাকাউন্ট ও পেজগুলো খোলার পেছনে জনপ্রিয়তা বা ইস্যুভিত্তিক বিষয় সামনে আসে। জনপ্রিয় ব্যক্তি বা সংগঠনের নাম ব্যবহার করে পরিচালনা করে এক শ্রেণীর ভিউ ব্যবসায়ীরা। কোন একটি ইস্যু সামনে আসলে সে ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের নামে দ্রুতই শতশত ফেক আইডি পেজ ক্রিয়েট করে ফেলে তারা। যেমন সজীব ওয়াজেদ জয়, সায়মা ওয়াজেদ পুতুল,শেখ হাসিনা বা কয়েকটি জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠিত পত্রিকার নাম,এমনকি আওয়ামীলীগ'র নামেও  একাধিক ফেক পেজ রয়েছে। এই পেজগুলো থেকে অসত্য ও হিংসাত্মক তথ্য ছড়ানো হয়। যার সাথে তাদের কোনোই যোগসূত্র নয়। 

৩১ মে বাংলাদেশ থেকে ভুয়া খবর ছড়ানোয় ৯৮টি পেজ ও ৫০টি অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে ফেসবুক। চলতি বছরের প্রথম ত্রৈমাসিক প্রতিবেদন এই তথ্য প্রকাশ করে সামাজিক মাধ্যমটির মূল প্রতিষ্ঠান মেটা, যা নিয়ে রীতিমত হৈচৈ পড়ে যায়।কেননা বন্ধ হয়ে যাওয়া এই পেজগুলোর সথে আওয়ামীলীগ ও তার গবেষণামূলক প্রতিষ্ঠান সিআরআই'র যোগসূত্র রয়েছে বলে দাবি করা হয়।

মেটার প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয় ‘বিএনপির বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ’সহ দলটির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে নেতিবাচক প্রচারণা ও কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ফেসবুক পেজ ও অ্যাকাউন্টগুলা বন্ধে করে দেয়া হয়েছে। এতে বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন দল এবং এর গবেষণা প্রতিষ্ঠান 'সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন'-সিআরআই'র সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের যোগসূত্র পাওয়া গেছে বলেও দাবি করা হয়।'

তবে আওয়ামী লীগ ও সিআরআই জড়িত বললেও পেজ বা ফেক আইডিগুলোর সাথে আওয়ামীলীগ বা সিআরআই'র যোগসূত্র কি সে বিষয়ে কোনো তথ্য প্রদান করেনি।  

মেটার প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, 'এই  পেজগুলোর মধ্যে কোনো কোনোটি একেবারে কল্পিত কোনো সংস্থার পরিচয় দিয়েছে। আবার কিছু কিছু ক্ষেত্রে বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠিত সংবাদমাধ্যমের নাম ব্যবহার করেছে।' কিন্তু প্রশ্ন হলো আওয়ামীলীগের মতো একটি বৃহৎ দল বা তাদের গবেষণা প্রতিষ্ঠান কেন কল্পিত নাম, এমনকি প্রতিষ্ঠিত কিছু পত্রিকার নাম দিয়ে পেজ খুলবে যেখানে সেসব পত্রিকার ভেরিভায়েড পেজ রয়েছে।এসবের কোন ব্যাখ্যা পাওয়া যায়নি।
 

ফলে প্রতিবেদনের বস্তুনিষ্ঠতা নিয়ে তৈরি হয়েছে বির্তক।প্রশ্ন উঠেছে শুধু বিরোধী দলের বিপক্ষের কন্টেন্ট বা আইডিগুলো চিহ্নিত করে সেগুলোকে সরকারি দল বা তার গবেষণামূলক প্রতিষ্ঠান করেছে বলে দাবি করা কতটুকু যুক্তিসঙ্গত? কেননা ডিজিটাল উৎকর্ষের যুগে তথ্য গোপন করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করা কঠিন। কে কোন জায়গা থেকে ব্যবহার করে, আইপি এড্রেস ট্রেক করে নাম ঠিকানা বের করা যায়। তাছাড়া আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সর মাধ্যমে যাচাই-বাছাই করলেও প্রকৃত নাম বের হয়ে আসে।প্রযুক্তি জায়েন্ট ফেসবুকের এই সক্ষমতা নেই তা বিশ্বাস করা কঠিন।

এছাড়া বন্ধ করা এসব অ্যাকাউন্ট ও পেজগুলোর প্রায় ৩৪ লাখ ফলোয়ার ছিল এবং একই সঙ্গে এসব পেজ থেকে প্রায় ৬০ ডলারের সমপরিমাণ অর্থ বিজ্ঞাপনে ব্যয় করা হয়েছে বলে দাবি করা হয়, যা সম্পুর্ন হাস্যকর।কেননা আওয়ামী লীগ ও সিআরআই দ্বারা পরিচালিত এতগুলো ফেসবুক একাউন্ট ও পেজ  বিজ্ঞাপনের জন্য মাত্র ৬০ ডলার ব্যয় করে? এটি সম্পূর্ণ কল্পনা প্রসূত।

অন্যদিকে সরকার বিরোধী অসংখ্য ফেক পেজ রয়েছে,যার অধিকাংশই বিদেশ থেকে পরিচালনা করা হয়,সেগুলি   বন্ধ করা বা রিপোর্টে সেসব নিয়ে কোন তথ্য দেয়া হয়নি।তাহলে শুধু বিরোধীদলের বিপক্ষের কন্টেন্টগুলোই কেন টার্গেট করা হলো?

প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বলছেন,  বন্ধ হওয়া অ্যাকাউন্ট ও পেজগুলো খোলার পেছনে জনপ্রিয়তা বা ইস্যুভিত্তিক বিষয় সামনে আসে। জনপ্রিয় ব্যক্তি বা সংগঠনের নাম ব্যবহার করে পরিচালনা করে এক শ্রেণীর ভিউ ব্যবসায়ীরা। কোন একটি ইস্যু সামনে আসলে সে ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের নামে দ্রুতই শতশত ফেক আইডি পেজ ক্রিয়েট করে ফেলে তারা। যেমন সজীব ওয়াজেদ জয়, সায়মা ওয়াজেদ পুতুল,শেখ হাসিনা বা কয়েকটি জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠিত পত্রিকার নাম,এমনকি আওয়ামীলীগ'র নামেও  একাধিক ফেক পেজ রয়েছে। এই পেজগুলো থেকে অসত্য ও হিংসাত্মক তথ্য ছড়ানো হয়। যার সাথে তাদের কোনোই যোগসূত্র নয়। এসব চিহ্নত করে তা অপসারণ করা ফেসবুকের রুটিন ওয়ার্ক। এর জন্য ওই ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠানগুলো কোনোভাবেই দায়ী নয়। এসব অ্যাকাউন্টের পেছনে মূলত ভিউ ব্যবসায়ীরাই জড়িত। কিন্তু শুধু বিরোধীদলের বিপক্ষের কন্টেন্ট বলে ঢালাওভাবে এর জন্য আওয়ামীলীগ বা তার গবেষণা প্রতিষ্ঠানকে দায়ী করা যুক্তিসঙ্গত নয়। এছাড়া এর পেছনে ফেসবুক কতৃপক্ষের নিকট সরকার বিরোধী গোষ্ঠীর অভিযোগও আমলে নেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলেও মনে করেন তারা।

Share This Article

কোটা আন্দোলনের কর্মসূচি ঠিক করে দিচ্ছে বিএনপি-জামায়াত

কোটা আন্দোলনকারীদের তান্ডব:বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের হল পুড়ে ছাই

প্রধানমন্ত্রী সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন

চট্রগ্রাম মেডিকেলের অজ্ঞাত লাশকে শিক্ষার্থীদের লাশ বলে চালানোর চেষ্টা!

শিক্ষার্থীদের পাশে দেশবাসীকে দাঁড়ানোর আহবান ফখরুলের: পাশে দাঁড়িয়েছে কি বিএনপি?

ঢাকা কলেজের ছাত্রের প্রাণহানি, সারা দেশে নিন্দার ঝড়

ছাত্রশিবির-ছাত্রদল এবং বহিরাগতরা ঢাবির হলে তাণ্ডব চালিয়েছে

কোটা আন্দোলন ঘিরে লাশের রাজনীতি করতে চায় বিএনপি-জামায়াত: কাদের

কোটা বিরোধীদের হামলায় ছাত্রলীগ কর্মীর নিহতের ঘটনায় শোক

ঢাবি বন্ধ ঘোষণা, সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ


ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে অভিযানে নামবে পুলিশ : ডিবিপ্রধান

বিএনপি কার্যালয় থেকে ১০০ ককটেল উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৭

প্রধানমন্ত্রী'র বক্তব্যের মর্মার্থ বিকৃত করলো কারা

চার জেলায় বিজিবি মোতায়েন

ঢাবি ক্যাম্পাসে যেভাবে জড়ায় ছাত্রলীগ

সর্বোচ্চ আদালতকে পাশ কাটিয়ে সরকার কিছুই করবে না

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যকে বিকৃতভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে : কাদের

যুক্তরাষ্ট্রের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানাল বাংলাদেশ

মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে জেডি ভ্যান্সকে বেছে নিলেন ট্রাম্প

বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার সাথে 'ওয়ান ইলেভেন' সরকারের আচরণ যেমন ছিল

কোটা সংস্কার আন্দোলনে চবি শিক্ষার্থী নিহতের খবরটি গুজব